‘বাঁচাতে পারলে বাঁচাও’, উত্তরপ্রদেশে ভয়ানক হামলার হুমকি আইএস-এর

imagesমধ্যপ্রাচ্যে অস্তিত্বের লড়াই চালালেও, ভারতে ক্রমশ জাল বিস্তার করছে আন্তর্জাতিক জঙ্গিসংগঠন ইসলামিক স্টেট৷ এবার উত্তরপ্রদেশে ভয়ানক হামলা চালানোর হুমকি দিল সন্ত্রাসবাদী সংগঠনটি  >>

জেহাদি আগ্রাসনের গ্রাসে এবার কালিমাতা ঠাকুরানীর দেবোত্তর সম্পত্তি/শ্মশানঃ পুনরুদ্ধারের আশায় হিন্দু সংহতির দ্বারস্থ গ্রামবাসীরা

imagesএই পশ্চিমবঙ্গের মাটিতে হিন্দুদের সম্পত্তি গা-জোয়ারি দখলের অভিযোগ পাওয়া যায় ভূরি ভূরি। কিন্তু খোদ ঠাকুরের সম্পত্তি বেদখল! তায় আবার শ্মশান, এমনই বিরল অভিযোগের নজির পাওয়া গেল আরামবাগের একটি গ্রামের গ্রামবাসীদের পক্ষ থেকে  >>

‘হিন্দু রাষ্ট্র ভারতে রক্তগঙ্গা বইয়ে দাও’, হুমকি আইএস-এর

17309461_424491394558640_9041933933288805104_nলখনউ এনকাউন্টারে নিহত সইফুল্লার মৃত্যুর ‘বদলা’ নাও, আহ্বান আইএস জঙ্গি চ্যানেলের l
‘সইফুল্লাই ভারতীয় মুসলিমদের আদর্শ l’ এবার এমনই প্রচার শুরু করেছে আইএস পরিচালিত জেহাদি চ্যানেল l শুধু তাই নয়, ‘আল হিন্দি’ নামের ওই জেহাদি চ্যানেলের দাবি, ভারতীয় মুসলিমদের যুবকদের এবার এভাবেই হামলা চালাতে হবে  >>

স্কুল ভাঙচুরের ঘটনায় সাসপেন্ড বাগুইআটি থানার এসআই

babuihati-schoolস্কুল মেরামতির কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে৷ অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই পুরোদমে ক্লাসও শুরু হয়ে যাবে৷ দোষীদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী  >>

আদিনা মসজিদ কি সত্যিই মসজিদ?

……………..পরবর্তীতে দেখলাম  রজনীকান্ত চক্রবর্তী আমাদের ততটাও হতাশ করেন নি। প্রবাসী পত্রিকায় ‘পান্ডুয়া ভ্রমণ’ নামক রচনায় তিনি লিখেছেন, “আমি সাতাইশ বৎসর পূর্ব্বে একবার পান্ডুয়া দেখিতে গিয়াছিলাম…তখন আদিনার ভিতর বিস্তর হিন্দু দেবদেবীর মূর্তি দিয়া খচিত নামাজের স্থানে উঠিবার সোপান দেখিয়াছিলাম। যেমন মসজিদের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ স্খলিত হইতেছিল,অমনি মুসলমান ভয়ে লুক্কায়িত গণেশ কার্ত্তিকেয় কৃষ্ণ বিষ্ণু বাহির হইয়া পড়িতেছিল। সে সকল মূর্তির নাক প্রায় ভাঙ্গা ছিল। বেচারা কালাপাহাড়ের উপর তার কারণ অর্পিত হইত। এখন সে সকল মূর্তি দেখা গেল না। কোথায় গেল ?” ……….. »

 

বৃহত্তর ষড়যন্ত্র চন্দ্রকোনায় : হিন্দু সংহতির অফিসে প্রতিনিধি দল

1 জুন: চন্দ্রকোনা রোডের পরিস্থিতি আবার থমথমে। গত ২৮ ও ২৯ এপ্রিল সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় ৩ জন হিন্দু গ্রেপ্তার হয়েছে। F.I.R-এ নাম থাকা ৪ জন এলাকাছাড়া। স্থানীয় হিন্দুদের আশঙ্কা যে প্রশাসন আজ রাত অথবা কালকের মধ্যেই হিন্দু নেতৃবৃন্দ ও সক্রিয় যুবকদেরকে raid করে গ্রেপ্তার করবে। অথবা পুলিশের ভয়ে তারা এলাকাছাড়া হবে। তখন মুসলিমরা বিনা বাধায় স্থানীয় হনুমান মন্দিরের পাশে অবৈধ মসজিদ তৈরী করা শুরু করে দেবে বলে স্থানীয় হিন্দুদের আশঙ্কা, যে মসজিদটি তৈরী করতে ২০১০ সাল থেকেই চেষ্টা চালাচ্ছে। গত ২৯ শে এপ্রিল শুক্রবার তারা এজন্য জমায়েত ডেকেছিল। কিনতু তখন প্রশাসন কঠোর থাকায় সেই কাজ তারা করতে পারেনি। আবার তারা সেই চেষ্টা করবে বলে স্থানীয় হিন্দুদের আশঙ্কা। কারণ এরকম কৌশল এর আগে অনেক জায়গায় নেওয়া হয়েছে।

সেখানকার হিন্দুদের একটি প্রতিনিধিদল আজ দুপুরে সংহতির সভাপতি তপন ঘোষের সঙ্গে দেখা করেছে, এবং হিন্দু সংহতির সাহায্য চেয়েছে। তাদেরকে সবরকমের সাহায্যের প্রতিশ্রুতি সংগঠনের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছে।

গত পরশু রাত্রে একজন প্রভাবশালী মুসলিম নেতা চন্দ্রকোনা রোডের কাছে নবকোলা গ্রামে মুসলিম এলাকায় গিয়ে গুপ্ত মিটিং করেছেন বলে স্থানীয় সূত্রে খবর। প্রশাসনের নিরপেক্ষতা সম্বন্ধে স্থানীয় হিন্দুদের মনে সংশয় দেখা দিচ্ছে।

হিন্দু সংহতির পক্ষ থেকে ফোনে ডি. এম. ও এস. পি-র সঙ্গে কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু তাঁদের কথায় আমরা আশ্বস্ত হতে পারিনি।

আমরা আগামীকাল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার জেলাশাসক ও এস.পি. কে লিখিত আবেদন জানাব।

চন্দ্রকোনা রোডে ল্যান্ড জেহাদের চক্রান্ত

ল্যান্ড জেহাদ। এবার চন্দ্রকোনা রোড। স্টেশন সংলগ্ন হনুমান মন্দিরের পাশে মসজিদ চাই। লিফলেট বিলি করে লোক জমায়েত করে চাপ সৃষ্টির সেই পুরোনো খেলা। সেই কালিয়াচক, ময়ুরেশ্বর, ইলামবাজার মডেল। এগুলো ভাঙিয়ে অনেকদিন খেতে চায় ওরা। হিন্দুরা শান্তি চাইলেই কি শান্ত থাকবে ওরা? কখনোই না। ওদের ছুঁড়ে দেওয়া এই চ্যালেঞ্জ আজ নিতে না পারলে মাটি ওদের দখলে। আর হিন্দুরা উদ্বাস্তু। রুখে না দাঁড়ালে পরাজয়ের পরম্পরা আজ থেকে শুরু। Now or never

IMG_20160428_233421