জগদ্ধাত্রীপুজো উপলক্ষে বজবজের আকড়াতে বস্ত্র বিতরণ হিন্দু সংহতির

জগদ্ধাত্রী মায়ের পুজো উপলক্ষে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার অন্তর্গত বজবজের আকড়াতে বস্ত্র বিতরণ করলো হিন্দু সংহতি।এই  কর্মসূচির উদ্যোক্তা ছিল স্থানীয় আকড়া অটো ইউনিয়ন। গত ২৯শে অক্টোবর, রবিবার সন্ধ্যায় এই অনুষ্ঠানে প্রায় একশো জন অভাবী পুরুষ ও মহিলার হাতে বস্ত্র তুলে দেওয়া হয়। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হিন্দু সংহতির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রাণপুরুষ শ্রী তপন ঘোষ মহাশয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে শ্রী ঘোষ উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য  রাখেন। এছাড়াও এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হিন্দু সংহতির কোষাধক্ষ শ্রী সুজিত মাইতি, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শ্রী সুন্দর গোপাল দাস, শ্রী ঋদ্ধিমান আর্য।

Advertisements

দেগঙ্গাতে বস্ত্রবিতরণ করলো হিন্দুসংহতি

চরম প্রাকৃতিক দুর্যোগ উপেক্ষা করে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার দেগঙ্গাতে গত ২০ শে অক্টোবর,  শুক্রবার একটি বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠান করলো হিন্দু সংহতি। প্রচুর ঝড়বৃষ্টি চলার কারণে বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানটি খোলা মঞ্চে করা সম্ভবপর হয়ে ওঠেনি। বাধ্য হয়ে কর্মীরা অনুষ্ঠানটি করার উদ্যোগ নেয় গিলাবাড়িয়া মোড়ের বিদ্যাসাগর ক্লাবে। এই অনুষ্ঠানে হিন্দু সংহতির পক্ষ থেকে প্রায় ৫০ জন মহিলাকে শাড়ি ও ১৫০ জন বাচ্চা ছেলেমেয়েদেরকে জামা-কাপড় তুলে দেওয়া হয়। এই অনুষ্ঠানে হিন্দু সংহতির পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন হিন্দু সংহতির সভাপতি শ্রী দেবতনু ভট্টাচার্য মহাশয়, কোষাধক্ষ্য শ্রী সুজিত মাইতি মহাশয় এবং হিন্দু সংহতির আইনি পরামর্শদাতা শ্রী সুন্দরগোপাল দাস মহাশয়।

নদীয়া জেলার তেহট্টে কালীপুজো উদ্বোধন করলেন হিন্দু সংহতির সহ-সভাপতি

নদীয়া জেলার তেহট্টের বার্নিয়া গ্রাম। এবছর গ্রামের হিন্দু বাসিন্দারা প্রথম কালীপুজো শুরু করলো। আর সেই পুজো শুরুর পিছনে এলাকার হিন্দু সংহতির কর্মীদের অবদানও উল্লেখযোগ্য। আর সেই পুজো উদ্বোধনের জন্যে গ্রামবাসীরা আমন্ত্রণ জানায় হিন্দু সংহতিকে। আর সেই ডাকে সাড়া দিয়ে পুজো উদ্বোধনের জন্যে ওই গ্রামে কালীপুজোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন হিন্দু সংহতির সহ-সভাপতি শ্রী ব্রজেন্দ্রনাথ রায় ও হিন্দু সংহতির কোষাধক্ষ্য শ্রী সুজিত মাইতি। পুজো উদ্বোধনের পর গ্রামবাসীদের উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন  শ্রী ব্রজেন্দ্রনাথ রায় ও শ্রী সুজিত মাইতি মহাশয়।

কালীপুজো উপলক্ষে আমতায় বস্ত্র বিতরণ করলো হিন্দু সংহতি

হাওড়া জেলার আমতা ব্লকের রামচন্দ্রপুর গ্রাম। গ্রামের ক্লাব অগ্রগামী ক্লাব বেশ কয়েকবছর ধরে কালীপূজা করে আসছে। ক্লাবের কম-বেশি সব সদস্যই হিন্দু সংহতির কর্মী। এই বছর ক্লাবের সদস্যরা সংহতি সভাপতি দেবতনু ভট্টাচার্যকে পূজা উদ্বোধনের আমন্ত্রণ জানায়। সংহতি সভাপতি সেই আমন্ত্রণ গ্রহণ করেন এবং তিনি ক্লাবের সদস্যদের হিন্দু সংহতির সহায়তায় একটি বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠান করতে বলেন। সেই মতো গত ১৯শে অক্টোবর কালীপূজার দিন  গ্রামে পূজা উদ্বোধন ও বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হিন্দু সংহতির সভাপতি শ্রী দেবতনু ভট্টাচার্য, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শ্রী  ঋদ্ধিমান আর্য, শ্রী সুন্দরগোপাল দাস ও বিশিষ্ট আইনজীবী শান্তনু সিংহ। গ্রামের প্রায় ৫০ জনের হাতে বস্ত্র তুলে দেন হিন্দু সংহতির নেতৃত্ব।

দীপাবলির পুণ্যলগ্নে নদীয়ার কালীগঞ্জে বস্ত্র বিতরণ করলো হিন্দু সংহতি

নদীয়া জেলার কালীগঞ্জ থানার অন্তর্গত বানগড়িয়া গ্রামে গত ১৯শে অক্টোবর দীপাবলির দিন বস্ত্র বিতরণ করলো হিন্দু সংহতি। এলাকার নবীন সংঘের কালী পূজা মণ্ডপে এই বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়েছিল।এই নবীন সংঘের পূজার সঙ্গে হিন্দু সংহতির কর্মীরা অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত। এই অনুষ্ঠানে এলাকার  আদিবাসী হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রায় ১০০ জনকে বস্ত্র দান করা হয়। অনুষ্ঠানে হিন্দু সংহতির পক্ষ থেকে সহ সভাপতি শ্রী ব্রজেন্দ্রনাথ রায়, কোষাধক্ষ্য সুজিত মাইতি। এছাড়াও উপস্থিত  ছিলেন জেলার প্রমুখ কর্মকর্তা দীপক সান্যাল।