আমতায় দুঃস্থ হিন্দুদের কম্বল বিতরণ হিন্দু সংহতির

গতকাল বীর হিন্দু সন্ন্যাসী স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিন ছিল  সেই পুণ্য তিথিতে স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনে শ্রদ্ধার্ঘ্য সহ দুঃস্থ হিন্দুদের কম্বল বিতরণ করা হলো হিন্দু সংহতির পক্ষ থেকে। এই অনুষ্ঠানটি হাওড়া জেলার আমতা থানার অন্তর্গত দক্ষিণ হরিশপুর গ্রামে অনুষ্ঠিত হয়। হিন্দু সংহতির সভাপতি শ্রী দেবতনু ভট্টাচার্য স্বামী বিবেকানন্দের ছবিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন। তারপর হরিশপুর গ্রাম এবং আশেপাশের গ্রামের ২০০ জন দরিদ্র বৃদ্ধ, মহিলাদের হাতে কম্বল তুলে দেওয়া হয়।এই অনুষ্ঠানে হিন্দু সংহতিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন কলকাতার Magnum পরিবার।এই অনুষ্ঠানে হিন্দু সংহতির সভাপতি ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন হিন্দু সংহতির সম্পাদক শ্রী সুন্দর গোপাল দাস, সহ সম্পাদক শ্রী মুকুন্দ কোলে, উপদেষ্টা শ্রী চিত্তরঞ্জন দে এবং কলকাতার Magnum পরিবারের পক্ষ থেকে শ্রীমতি মীনা আগারওয়াল, সঞ্জীব তান্ঠিয়া এবং শ্রী বীরেন্দ্র মোদীজি। 

বালুরঘাটে আদিবাসীদের কম্বল বিতরণ হিন্দু সংহতির

শীতের প্রকোপে নিতান্ত অসহায় হতদরিদ্র আদিবাসী ভাই বোনেদের মুখে সামান্য হাসি ফোটাতে তাদের বাড়ীর উঠোনে পৌছে গেলো হিন্দু সংহতি।বাস রাস্তা থেকে চার কিলোমিটার ভেতরে বালুরঘাট ব্লকের ডাঙ্গা অঞ্চলের প্রত্যন্ত মাধবপাড়া গ্ৰামে আদিবাসী ভাইদের বাড়ীর উঠোনে গিয়ে তাদের হাতে কম্বল তুলে দিয়ে এলেন হিন্দু সংহতির কার্যকর্তা শ্রী প্রমিত লাহা এবং শ্রী রজত রায়। এখনো ঐ গ্ৰামে লাঙ্গল দিয়ে চাষ হয়। বহু মানুষ সেখানে সম্পূর্ণ অসহায়, নিঃস্ব। তাদের পাশে থাকার বার্তা দিতে হিন্দুসংহতির এই প্রয়াস।

দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটে আদিবাসীদের কম্বল বিতরণ হিন্দু সংহতির

আদিবাসী হিন্দু ভাই-বোনদের মুখে একটুখানি হাসি ফোটানোর লক্ষ্যে গত ৬ই জানুয়ারি, রবিবার হিন্দু সংহতির উদ্যোগে বালুরঘাট ব্লকের মালঞ্চা আয়নাপাড়া গ্ৰামে রবিবার দুস্থ আদিবাসী ভাই বোনদের মধ্যে কম্বল বিতরন করা হয়। এই অনুষ্ঠানে দুঃস্থ আদিবাসী বৃদ্ধ-বৃদ্ধা এবং মহিলাদের হাতে কম্বল তুলে দেওয়া হয়। হিন্দু সংহতির পক্ষ থেকে ৫৮জনের হাতে কম্বল তুলে দেওয়া হয়।এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হিন্দু সংহতির স্থানীয় কর্মকর্তা শ্রী রজত রায় মহাশয়, বালুরঘাট সদর হাসপাতালের (অবসরপ্রাপ্ত) স্টোর ইনচার্জ শ্রী গৌরীশঙ্কর রায়, বালুরঘাট জেলা আদালতের আইনজীবি শ্রী প্রদীপ সরকার, মুহুরি শ্রী নিশিকান্ত পাহান, পঞ্চায়েত সদস্যা শ্রীমতি সাদ্রী ওরাও এবং আরো অনেকে। সংক্ষিপ্ত বক্তব্যের মাধ্যমে উপস্থিত বিশিষ্ট ব্যক্তিরা হিন্দু সমাজের ঐক্যবদ্ধতার প্রয়োজনীয়তার কথা বলেন এবং বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে আদিবাসী সমাজকে আরো সক্রিয়ভাবে হিন্দুসমাজে অগ্ৰনী ভূমিকা নেবার আহ্বান জানান। দল নয়, গোষ্ঠী নয়, ভাষা নয়, বর্ণ নয়, পেশা নয়, পরিচিতি একটাই হোক- আমরা হিন্দু; এই বার্তাই দেন বক্তারা।

সমুদ্রগড়ে শীতবস্ত্র ও কম্বল বিতরণ হিন্দু সংহতির

গত ৫ই জানুয়ারি, শুক্রবার বর্ধমান জেলার সমুদ্রগড়ে এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে প্রায় শতাধিক দুস্থ মানুষকে কম্বল ও শীতবস্ত্র দেওয়া হয়। এই অনুষ্ঠানটি নাদনঘাটের নিবীন সংঘের মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হিন্দু সংহতির সহ সভাপতি শ্রী সুজিত মাইতি মহাশয়, নাদনঘাটের প্রমুখ কর্মী সঞ্জয় সূত্রধর এবং স্থানীয় হিন্দু সংহতির শুভাকাঙ্খী শ্রী বিবর্জন সরকার।

পূর্ব মেদিনীপুরের কোলাঘাটে দুস্থদের কম্বল বিতরণ করলো হিন্দু সংহতি

গত ২৪শে ডিসেম্বর, রবিবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কোলাঘাট এলাকার বড়িশা গ্রামে স্থানীয় হিন্দু সংহতির কর্মীদের আয়োজনে দুস্থ সহায়-সম্বলহীন মহিলাদের হাতে কম্বল তুলে দেওয়া হয়। প্রায় ২০০ জন মহিলাকে কম্বল দেওয়া হয়। হিন্দু সংহতির এই মহতী উদ্যোগে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলো কলকাতার ”সালাসার ভক্তবৃন্দ”। এছাড়াও ঐদিন হিন্দু সংহতির কর্মীরা বড়িশা মোড়ে একটি শ্রী হনুমান মন্দির প্রতিষ্ঠা করেন। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হিন্দু সংহতির সহ সভাপতি শ্রী দেবদত্ত মাজি মহাশয়, হিন্দু সংহতির সম্পাদক শ্রী সুন্দর গোপাল দাস এবং সহ-সম্পাদক শ্রী সৌরভ শাসমল। এছাড়া সালাসার ভক্তবৃন্দ -এর পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন শ্রী বীরেন্দ্র মোদী  মহাশয় এবং শ্রী সুশীল যজোতিয়া মহাশয়।