যুদ্ধাপরাধ বিচার নিয়ে টালবাহানা করছে সরকার

গণজাগরণ মঞ্চের বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বলেছেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে জামায়াতের রাজনীতি নিষিদ্ধ ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের কথা বললেও নির্বাচনের পরে টালবাহানা করছে ক্ষমতাসীন সরকার। ক্ষমতাকে দীর্ঘায়িত করার জন্যই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে এ পরিস্থিতির মধ্যেও আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে। ৬ দফা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা ঘরে ফিরে যাবো না, আমাদের আন্দোলন চলবে।

গতকাল শুক্রবার বিকালে রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ‘জামায়াত নিষিদ্ধ সম্ভব নয়’ আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের এমন বক্তব্যের প্রতিবাদে গত ২ জুন আইন মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচিতে পুলিশী বাধার প্রতিবাদে এ সমাবেশ করে মঞ্চ। সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়।

সমাবেশে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার বলেন, ক্ষমতাসীন সরকার জামায়াত নিষিদ্ধ ও যুদ্ধাপরাধের বিচারকে রাজনৈতিক ইস্যু হিসেবে ব্যবহার করছে। আসলে তারা এই বিচার চায় না। গণজাগরণ মঞ্চের কর্মসূচিতে পুলিশী হামলার মাধ্যমে এটি প্রমাণিত হয়েছে। কিন্তু ৬ দফা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা ঘরে ফিরে যাবো না।

মানবাধিকার কর্মী ও ‘নিজেরা করি’র সমন্বয়ক খুশী কবির বলেন, শুধু একজন যুদ্ধাপরাধীকে ফাঁসি দিয়ে সকল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শেষ হতে দিব না। যতদিন পর্যন্ত সকল যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তি না হবে ততদিন এই আন্দোলন চলবে।

ডাকসু’র সাবেক জিএস ডা. মোশতাক হোসেন বলেন, বিচার নিয়ে টালবাহানা করছে সরকার। মনে হচ্ছে নির্বাচনের পরে তারা যুদ্ধাপরাধের বিচারের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, রাকসুর সাবেক ভিপি রাগিব হাসান মুন্না, কবি মোহন রায়হান, কণ্ঠশিল্পী মাহমুদুজ্জামান বাবু, ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক লাকি আক্তার, উদীচীর সাধারণ সম্পাদক জামশেদ আনোয়ার তপন প্রমুখ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s