জেএমবি জঙ্গিদের খোঁজে উত্তর দিনাজপুর জেলাজুড়ে তল্লাশি গোয়েন্দাদের 

jmbউত্তর দিনাজপুরে আরও জঙ্গি মডিউল রয়েছে কিনা তার সন্ধান করছে গোয়েন্দারা। ভারত-বাংলাদেশ ও বিহার সীমান্তে পুলিসের নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে বিএসএফের সঙ্গে পুলিসের যৌথ নজরদারি কয়েকগুণ বাড়িয়ে সীমান্তকে নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে। সীমান্তে অচেনা সন্দেহভাজন কাউকে দেখলে পুলিস ও বিএসএফ তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত খোঁজ করছে। উত্তর দিনাজপুরে জঙ্গি সংগঠন জেএমবির দুই মাথাকে এসটিএফ গ্রেপ্তার করতেই জেলা পুলিস কর্তাদের উদ্বেগ বেড়ে গিয়েছে। প্রতিটি থানাকে সতর্ক করার পাশাপাশি জেলার আরও কোথাও জঙ্গিরা ঘাপটি মেরে আছে কিনা তার খোঁজখবর চলছে। গোয়েন্দাদের ধারণা, জেলার প্রত্যন্ত গ্রামীণ এলাকায়, ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত ও বিহার সীমান্তের গ্রামে জেএমবির এজেন্টরা রয়েছে। ওই সমস্ত এলাকা থেকে শুধু জেহাদি তৈরি করাই নয়, জঙ্গি কার্যকলাপের জন্য বিস্ফোরক, আগ্নেয়াস্ত্র মজুত করাও হতে পারে। গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, প্রায় তিন বছর ধরে জেলায় জেএমবি তাদের সংগঠনের জাল বিস্তার করেছে। দু’জন মাথা ধরা পড়লেও জেএমবির শিকড় কতটা গভীরে রয়েছে, গোয়েন্দারা এখন তার সন্ধ্যান শুরু করেছে।
ইটাহার থানা এলাকার বাসিন্দা আব্দুল বারি ও নিজামউদ্দিন খানকে গত মঙ্গলবার সামসি থেকে এসটিএফ গ্রেপ্তার করেছে। বুধবার ধৃতদের দোকানে ও বাড়িতে অভিযান চালিয়ে জেহাদি কার্যকলাপের বেশকিছু তথ্যপ্রমাণ, মজুত রাসায়নিক, ল্যাপটপ, জেহাদি কাগজপত্র পেয়েছে গোয়েন্দারা। ধৃত আব্দুল বারি ইটাহারের মারনাই প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কাছে একটি প্যাথলজিক্যাল ল্যাবরেটরি চালাত। ওই ল্যাবের আড়ালে আসলে সে জেএমবির অন্যতম মাথা হয়ে কাজকর্ম চালাত। নতুন নতুন ছেলেদের তার ডেরায় এনে দেশবিরোধী হিংসাত্মক মানসিকতা তৈরি করা, তাদেরকে জঙ্গি কার্যকলাপের প্রশিক্ষণের জন্য বিভিন্ন ডেরায় পাঠানোর দায়িত্ব পালন করত। নিজামমুদ্দিন নিজের এলাকায় ডাক্তার বলে পরিচিত ছিল। হাতুড়ে ওই ডাক্তার পেশার আড়ালে বিভিন্ন সীমান্তবর্তী গ্রামে গিয়ে চিকিৎসা পরিষেবা দিয়ে অনেকের কাছের মানুষ হয়ে উঠত। অধিকাংশ ক্ষেত্রে সে নিখরচায় চিকিৎসা পরিষেবা দিয়েছে। জেএমবির দুই মাথা অসহায় অসুস্থদের চিকিৎসা ও চিকিৎসা সংক্রান্ত পেশাকে হাতিয়ার করে তাদের পরিবারের সদস্যদের জঙ্গি দলে টানার চেষ্টা করেছে। গোয়েন্দাদের ধারণা, প্রত্যন্ত ও সীমান্তবর্তী এলাকায় এধরনের আরও হাতুড়ে চিকিৎসক, এমনকী সমাজসেবার আড়ালে অনেকেই তলে তলে জেএমবির সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারে।  তাদেরই খোঁজ চালাচ্ছেন গোয়েন্দারা।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s