সরস্বতী পুজাতে আপত্তি থাকলেও ব্যারাকপুরের মিশনারি স্কুলে পালিত হলো ঈদ

assembly-of-angels-

ঘটনা ব্যারাকপুরের Assembly of Angels স্কুলের। স্কুলটি মিশনারি স্কুল। সেই হিসেবে স্কুলে যিশুখ্রিস্টের জন্মদিন ছাড়া আর কোনো উৎসব পালিত হয় না। কিন্তু এইবছর তার ব্যতিক্রম ঘটলো। স্কুলে সাড়ম্বরে পালিত হলো মুসলিম সম্প্রদায়ের ঈদ।  এই ঘটনায় অভিভাবকদের মধ্যে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। তারা সরাসরি স্কুলের মুসলিম প্রিন্সিপালের ওপর সাম্প্রদায়িকতার অভিযোগ তুলেছেন। কারণ হিসেবে অভিভাবকরা জানিয়েছেন যে স্কুলের প্রায় সমস্ত ছাত্র-ছাত্রী হিন্দু। তাই এর আগেও অভিভাবকরা স্কুলে সরস্বতী পুজা করার দাবি জানিয়েছিলেন। কিন্তু স্কুলের মুসলিম প্রিন্সিপাল সে অনুরোধ খারিজ করে দেন। কিন্তু গত ৯ই আগস্ট, শুক্রবার স্কুলে আগাম ঈদ পালন করা হলো। এই ঈদ পালন নিয়ে অভিভাবকরা আপত্তি তোলেন। এ ছাত্রের অভিভাবক বলেন যে, ”আমি যখন ঈদ অনুষ্ঠান পালনের নোটিস হাতে পাই, তখনিই আমি এসে স্কুল কতৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করি এবং আমার আপত্তি জানাই। আমাকে স্কুলের পক্ষ থেকে বলা হয়, আমরা ধর্মনিরপেক্ষ দেশে বাস করি। তাই যে কোনো ধরণের অনুষ্ঠান স্কুলে করা যায়। কিন্তু আমাদের প্রশ্ন হলো , তাহলে এতদিন আমরা যে সরস্বতী পুজো পালনের অনুরোধ জানিয়ে এসেছি, তা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে কেন?হঠাৎ করেই ঈদ পালনের সিদ্ধান্ত কি করে গ্রহণ করলো স্কুল কতৃপক্ষ? এবং তার জন্য বিশেষ ধরণের পোশাক পরে আসার নির্দেশ কেন দিলো স্কুল কতৃপক্ষ? এছাড়াও অনেক অভিভাবক ফেসবুকসহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে তাদের ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন। তবে এ বিষয়ে স্কুল কতৃপক্ষ তাদের তরফে কোনো বিবৃতি প্রকাশ করেনি।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s