উত্তর দিনাজপুরে হিন্দু বাসিন্দাদের ভোট দিতে দিলেন না গ্রামের মুসলিমরা

পশ্চিমবঙ্গের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মুকুটে নতুন পালক যোগ হলো ২০১৯শের লোকসভা ভোটে। গ্রামের মুসলিম বাসিন্দারা ভোট দিতে দিলেন না গ্রামের হিন্দুদের যারা সংখ্যালঘু। ঘটনাটি ঘটেছে দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত চোপড়া এলাকার একটি গ্রামে। জানা গিয়েছে, ওই গ্রামে হিন্দুরা সংখ্যালঘু। গ্রামে মুসলিমরাই সংখ্যাগরিষ্ঠ। ওই গ্রামে মাত্র ৬০০ জন হিন্দু ভোটার। অভিযোগ, গতকাল যখন গ্রামের কয়েকজন হিন্দু বাসিন্দা ভোট দিতে বুথে যান, তখন বুথের বাইরে থাকা কয়েকজন মুসলিম ব্যক্তি তাদেরকে বলে যে তাদের ভোট দেওয়া হয়ে গিয়েছে। প্রতিবাদ করলে মারধর করে ভোটার কার্ড কেড়ে নেওয়া হয়। পরে কয়েকজন বাসিন্দা সাইকেলে করে ভোট দিতে আসছিলেন, তাদেরকে রাস্তায় আটকে মারধর করা হয়, সাইকেল ভেঙে দেওয়া হয়। তাদেরকে বলা হয় যে তারা নাকি একটি বিশেষ রাজনৈতিক দলের সমর্থক, তাই তাদেরকে বুথে যেতে দেওয়া হবে না।পুলিসকে জানিয়েও কোনো লাভ হয়নি। ফলে লোকসভা নির্বাচনে গ্রামের একজনও হিন্দু বাসিন্দা তাদের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করতে পারেননি। পরে তারা দলবদ্ধভাবে বিক্ষোভ দেখান। তখন বিষয়টি কয়েকটি জাতীয় ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকদের নজরে আসে। তাদের প্রচার ছড়িয়ে পড়ার পর সারাদেশের শুভবিদ্ধিসম্পন্ন মানুষের মনে ক্ষোভ ছড়িয়েছে। তারা মনে করছেন যে এই ঘটনার মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গের গণতন্ত্রের বেহাল অবস্থার ছবি প্রকাশ পেয়েছে ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s