মালদহে প্রচুর জালনোট সহ ২ জনকে গ্রেপ্তার করলো এনআইএ-এর গোয়েন্দারা

গত ৫ই জানুয়ারী, শুক্রবার ভোররাতে মালদহের বৈষ্ণবনগরের টাউনশিপ মোড় থেকে ৪ লক্ষ ৬২ হাজার টাকার জালনোট বাজেয়াপ্ত করেছে এনআইএ। সেই সঙ্গে দু’জন পাচারকারীকেও তারা গ্রেপ্তার করেছে। এনআইএ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃতদের নাম সন্তোষ মণ্ডল ও পিন্টু মণ্ডল। তারা দু’জনেই কালিয়াচকে শাহবাজপুরের বাসিন্দা। এই দুই ক্যারিয়ারের উপরে সম্প্রতি এনআইএ’র গোয়েন্দারা নজর রাখতে শুরু করেছিলেন। শুক্রবার ভোরে ফারাক্কা থেকে ট্রেন ধরতে যাওয়ার পথে এনআইএ গোয়েন্দারা ওই দু’জনকে ধরে ফেলেন। এনআইএ-এরর দাবি, এরা ট্রেনে করে নোট সরবরাহ করতে যাচ্ছিল। এনিয়ে গত ১৫ দিনে মালদহ থেকে প্রায় ১৩ লক্ষ টাকার জালনোট বাজেয়াপ্ত হল।

আচমকা মালদহে জালনোট পাচারের তৎপরতা বেড়ে যাওয়ায় গোয়েন্দা মহলে উদ্বেগ ছড়িয়েছে। গত ৩১ ডিসেম্বর ভোররাতে এক মহিলা ও তার পুরুষসঙ্গী জালনোট পাচারের সময় ধরা পড়ে যায়। সেই সময়েই নতুন কৌশল তৈরি করে জালনোট পাচারের বিষয়টি নিয়ে গোয়েন্দা মহলে চর্চা শুরু হয়েছিল। পাশাপাশি উন্নত মানের জালনোট বাংলাদেশের শিবগঞ্জে তৈরি করা হয়েছে। সেই নোট বাজারে ছড়ানোর সম্ভাবনা নিয়ে বিভিন্ন নিরাপত্তা সংস্থাকে গোয়েন্দারা আগেই সতর্ক করেছিলেন।

পুজোর সময় মালদহে জালনোট ছড়িয়ে দেওয়া নিয়ে পাচারকারীদের বিপুল তৎপরতা দেখা গিয়েছিল। সেই সময় বিভিন্ন নিরাপত্তা এজেন্সির পালটা তৎপরতার জেরে পুজোর পরে মালদহ থেকে জালনোট পাচারের ঘটনা কমে আসে। এরপর বিচ্ছিন্ন কয়েকটি ঘটনা বাদ দিলে ডিসেম্বর মাসের শেষ দিকে প্রথম জালনোট বাজেয়াপ্ত হয়। গত ৩১ ডিসেম্বর ভোররাতে সাড়ে ছয় লক্ষ টাকার জালনোট বাজেয়াপ্ত হয়। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে কালিয়াচকের হ্যাপি মোড় থেকে বিএসএফ জওয়ানরা ওই টাকা বাজেয়াপ্ত করে। সেই ঘটনায় ঘেরা ভগবানপুরের বাসিন্দা এক মহিলা ও পুরুষকে বিএসএফ ধরেছিল। ওই মহিলার পোশাকের ভেতরে জালনোটগুলি রাখা হয়েছিল। ওই দু’জন পাচারকারী দম্পতির ছদ্মবেশ নিয়ে বিএসএফকে ধোঁকা দেওয়ার চেষ্টা করেছিল। তাদের কাছ থেকে উন্নতমানের জালনোট পাওয়া যায়।

সেই ঘটনার পর পাঁচদিনের মাথায় শুক্রবার ভোররাতে গোয়েন্দাদের হাতে দুই জন জালনোট পাচারকারী গ্রেপ্তার হল।তাদের কাছ থেকে যে ৪ লক্ষ ৬২ হাজার টাকার জালনোট পাওয়া গিয়েছে তা গত রবিবার বাজেয়াপ্ত হওয়া টাকার মতোই উন্নতমানের বলে জানা গিয়েছে। এনআইএ সূত্রে জানা গিয়েছে, এই দু’জন মূলত পাচারকারী। তাই তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। মালদহ লাগোয়া বাংলাদেশের শিবগঞ্জে মজুত জালনোটের পাচার রুখতে গোয়েন্দা মহল তৎপর রয়েছে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s