আশ্রয় ও সহায়তার নামে যুবতীকে(১৮) রাতভর ধর্ষণ, অভিযুক্ত জামায়াত নেতা

bbbb

তৈয়ব আলী ও খাদিজা বেগমের বড় মেয়ে আরফার বিয়ে ঠিক হয়েছিল। এমন সময় বিভীষিকা নেমে আসলে পরিবারটি রুম খাঁ নামের এক বাংলাদেশী দালালের মাধ্যমে উখিয়ার শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নেয়।

পালং গ্রামের করিম বক্সের ছেলে রুম খাঁর মাধ্যমে পরিচয় হয় ডা. ছালাম ও এডভোকেট জালালের সাথে। তারা তৈয়ব ও খাদিজাকে কাজ ও থাকার ব্যবস্থা করার আশ্বাস দিয়ে একটি বাড়ি ভাড়া করে দেয়।

গত শুক্রবার রোহিঙ্গা দম্পতির বড় মেয়ের সাথে ছালাম ও জালাল অশালীন আচরণ করলে তারা এই দুই জামায়াত নেতার পা ধরে সম্মান রক্ষার আকুতি জানায়।

ক্ষুব্ধ হয়ে বাড়ি ত্যাগ করলেও জামায়াত নেতা শিবিরের আরও ৬ জন নেতা-কর্মী নিয়ে রোববার সেই ভাড়া করা বাড়িতে হানা দেয়। বাবা-মায়ের চোখের সামনে রাতভর তরুণীকে ধর্ষণ করে এবং পাশবিক নির্যাতন চালায়।

গতকাল তৈয়ব আলী ও আরফা থানায় অভিযোগ জানালে ভাড়া করা বাড়ি থেকে তাদের বের করে দেওয়া হয়।

জানা গেছে, আবদুস ছালাম, জালাল ও রুম খাঁকে অভিযুক্ত করে আরো অজ্ঞাত ৬ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ১৯শে সেপ্টেম্বর  সকাল ৯ টায় ছালামকে গ্রেফতার করে পুলিশ। অন্যরা পালিয়ে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, উক্ত পরিবারের এবার স্থান হয়েছে টেকনাফ উপজেলার হোয়াক্যং ইউনিয়নের রইক্ষ্যং শরণার্থী ক্যাম্পে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s