৬ রোহিঙ্গা মুসলিমকে বাংলাদেশে পুশব্যাক করল বিএসএফ(BSF)

rohinga-620x325 (1)মায়ানমারে গৃহযুদ্ধের কারণে পালিয়ে ভারতে আশ্রয় নেওয়া ৬ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে পুশব্যাক করেছে সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ(BSF)।

গত ২৫শে অক্টোবর, বুধবার ভোরে পশ্চিমবঙ্গের পাথারঘাটা সীমান্ত দিয়ে তাদের পুশব্যাক করা হয়। ওপারে বাংলাদেশের মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার নাজিরাকোনা সীমান্তে একই পরিবারের ওই ৬ রোহিঙ্গা সদস্যকে  কেদারগঞ্জ বাজার থেকে আটক করে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আটককৃতরা হলেন, আব্দুল গনি (৩৫), তার স্ত্রী সালমা খাতুন (৩০), তাদের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (১০), সাইফুল ইসলাম (৩), মেয়ে নুর কলিমা (৬), তছলিমা খাতুন (১০) মাস। আটকরা বর্তমানে মুজিবনগর থানার হেফাজতে রয়েছে।

পুলিশ জানায়, ভোররাতে আটক রোহিঙ্গারা সীমান্ত পেরিয়ে মুজিবনগরের কেদারগঞ্জ বাজারে অবস্থান নেয়। তাদের কথাবার্তায় সন্দেহ হলে স্থানীয় লোকজন পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে।ধৃতরা  পুলিশকে জানান, সাত মাস আগে মায়ানমারে নির্যাতনের শিকার হয়ে ভারতের পাঞ্জাবে চলে যান। পরে তাদের ভারতীয় পুলিশ আটক করে গাড়ি যোগে সীমান্তে নিয়ে আসে। ভোররাতে বিএসএফ (BSF) গেট খুলে তাদের বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়।স্থানীয়রা জানান, ভোরে মুজিবনগর উপজেলার নাজিরাকোনা সীমান্তের ১০৯ নাম্বার মেন পিলারের কাছ দিয়ে রোহিঙ্গাদের আসতে দেখেছেন তারা।

নাজিরাকোনা বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার হাবিলদার সিরাজুল ইসলাম বলেন, রোহিঙ্গা পুশব্যাকের বিষয়ে আমরা কিছু জানি না। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি।মুজিবনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  (ওসি) মনিরুল ইসলাম পুশব্যাকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আটক রোহিঙ্গাদের বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। আটক রোহিঙ্গা আব্দুল গনি জানান, কক্সবাজারের কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে তাদের ভাই, বোনসহ অন্য আত্মীয়রা রয়েছে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s