সেনাবাহিনী নয়, তাদের ওপর নির্যাতন চালিয়েছে রোহিঙ্গা মুসলিমরা, বক্তব্য রোহিঙ্গা হিন্দুদের

আগে মায়ানমারের রোহিঙ্গা হিন্দু শরণার্থীরা  বলেছিলেন, তারা মায়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতনের কারণে মুসলমানদের সাথে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছেন। কিন্তু মায়ানমার থেকে বাংলাদেশে যে কয়েকশো হিন্দু রোহিঙ্গা এসেছে তাদের কেউ কেউ এখন তাদের উপর নির্যাতনকারী হিসেবে সরাসরি রোহিঙ্গা মুসলমানদের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলছেন।

উখিয়ার হিন্দু রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরটির একাধিক বাসিন্দা বললেন, তাদের উপর হামলাকারী ‘কালো পোশাকধারীরা’ ছিল মুসলমান। এরা রয়েছেন উখিয়ার কুতুপালং পশ্চিমপাড়ায়। এখানে ১০৮টি পরিবারের ৪৪০জন হিন্দু রোহিঙ্গা বসবাস করছেন। জায়গাটা পাহাড়ি নয়, সমতল।

স্থানীয় এক হিন্দু পরিবারের বাড়ির উঠোন। পাশে আরো কয়েকঘর হিন্দু আছে। অধিকাংশ শরণার্থীর আশ্রয় হয়েছে একটি পরিত্যক্ত মুরগির খামারে। অনেকটা হলঘরের মতো। সবাই এক ছাদের নিচে। তুলনামূলক ভালই আছে এরা। পাশেই শামিয়ানা টানিয়ে রান্না হচ্ছে।

এদের সবাইকে ভারতীয় একটি সংগঠন ‘ইউনাইটেড শিখ’-এর  সৌজন্যে তিন বেলা ভাত রেঁধে খাওয়ানো হচ্ছে। এখানে আমার এক মহিলা বলেন, “আমাদেরকে মুসলমান কালো পোশাকধারীরা সাতদিন ধরে বন্দী করে রেখেছিল। সাত দিন ধরে বের হতে দেয়নি। মোবাইলে কথা বলতে দেয়নি।এমনকি ওষুধ কিনতেও যেতে দেয়নি। তারপর এক পর্যায়ে সুযোগ পেয়ে পালাই। পালিয়ে বহু কষ্টে বাংলাদেশে আসি”।

যেমনটি ববিতা শীল নামে এক মহিলা বলেন, “তারা কালো পোশাক পরা। শুধু চোখ দেখা যায়। সবাই কালো নেকাব পরা। আমাদেরকে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়। ঘিরে রাখে। বাজার করতে দেয় না। বাইরে গেলে ধমকায়”।

রাখাইনে মুসলমানদের সাথেই দীর্ঘদিন ধরেই শান্তিপূর্ণ ভাবে বসবাস করে আসছিল ওই এলাকার জনসংখ্যার মোটে ১% এই হিন্দুরা। কিন্তু অবস্থা বদলে যায় রোহিঙ্গা মুসলিমদের জঙ্গি সংগঠন রোহিঙ্গা সলভেসন আর্মি যখন রোহিঙ্গা হিন্দুদের গ্রাম আক্রমন করে জ্বালিয়ে দেয়। অনেককে অপহরণ করে নিয়ে যায় রোহিঙ্গা মুসলিম জঙ্গিরা।

বলরাম শীল নামে একজন বলছিলেন, “আমরা মুসলমানদের শিবিরে থাকবো না। প্রয়োজনে আমাদেরকে মেরে ফেলুন। তাও ওদের মধ্যে থাকবো না”।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s