দৈনিক যুগশঙ্খ পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানালো হিন্দু সংহতি

১৮ ই সেপ্টেম্বর দৈনিক যুগশঙ্খে প্রকাশিত ‘মমতার হয়ে চরম হিন্দুত্বের তাস খেলতে ময়দানে তপন ঘোষ’ শীর্ষক খবরের পরিপ্রেক্ষিতে হিন্দু সংহতির পক্ষ থেকে বিধিবদ্ধ প্রতিবাদ জানানো হল।

“দৈনিক যুগশঙ্খ
সম্পাদক মহাশয় সমীপেষু ,

আজকের দৈনিক যুগশঙ্খ পত্রিকায় প্রকাশিত ‘মমতার হয়ে চরম হিন্দুত্বের তাস খেলতে ময়দানে তপন ঘোষ’ শীর্ষক খবর প্রকাশিত হওয়ার পর  থেকে বিভিন্ন মহলে একটা বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। তাই হিন্দু সংহতির পক্ষ থেকে এই স্পষ্টীকরণ দেওয়া আবশ্যক হয়ে পড়েছে।

হিন্দু সংহতি একটি আগাগোড়া দল নিরপেক্ষ ধর্মীয় – সামাজিক প্রতিষ্ঠান। আমরা হিন্দু সমাজের মধ্যে সেই শক্তি, সাহস ও আত্মবিশ্বাস সঞ্চারিত করতে চাই, যার ভিত্তিতে এই সমাজ ইসলামিক আগ্রাসনের থেকে নিজের অস্তিত্ব ও আত্মসম্মান রক্ষা করতে সক্ষম হয়। ইসলামিক আগ্রাসনের কারণেই একদিন ওপার বাংলা থেকে পার্টি  নির্বিশেষে হিন্দুদের উদ্বাস্তু হয়ে পালিয়ে আসতে হয়েছিল, আজও হচ্ছে। ঠিক সেইভাবেই আজ এপার বাংলার সব পার্টির হিন্দুর মাথার উপরে সেই ইসলামিক আগ্রাসনের কালো মেঘ ঘনীভূত। তাই হিন্দুর এই অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই-এর মঞ্চে সব রাজনৈতিক দলের হিন্দুকে আমরা স্বাগত জানাতে চাই। সুতরাং কোনও দল আমাদের বন্ধু নয়। একই ভাবে কোনও দলই আমাদের শত্রু নয়। আমরা গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচিত কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদীর সরকার এবং রাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের প্রতি পূর্ণ সমর্থন ও সহযোগিতার ভিত্তিতে আমাদের আত্মরক্ষার সাংবিধানিক অধিকারকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। আমাদের এই লড়াই সম্পূর্ণ রূপে ধর্মীয়-সামাজিক প্রতিরোধের লড়াই, মোটেই রাজনৈতিক লড়াই নয়। তাই হিন্দু সংহতি কোনোদিন রাজনৈতিক দলে রূপান্তরিত হওয়ার প্রশ্নই ওঠে না এবং নতুন রাজনৈতিক দল গঠনের কোনও পরিকল্পনাও এখনও পর্যন্ত করা হয় নি।
সুতরাং হিন্দু সংহতির প্রাক্তন সভাপতি পদত্যাগ করার পরে তৃণমূলকে সাহায্য করার জন্য একটা নতুন রাজনৈতিক দল তৈরী করতে চলেছেন বলে আপনারা যে সংবাদ পরিবেশন করেছেন, তা নেহাতই আপনাদের মনগড়া। আমি সংগঠনের পক্ষ থেকে বিধিবদ্ধভাবে এর প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং ভবিষ্যতে এই ধরণের মনগড়া খবর প্রকাশ করে বিভ্রান্তি সৃষ্টি না করার অনুরোধ করছি। একটি দায়িত্ববান সংবাদপত্র হিসাবে আপনাদের কাছে এই প্রকার মনগড়া, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং একটি বিশেষ গোষ্ঠীর স্বার্থরক্ষাকারী সংবাদ প্রকাশ কাম্য নয়।”
Jugasankha_refutal
Advertisements