২৩ জন রোহিঙ্গা মুসলিম নাগরিকত্ব পেল রাজ্য সরকারের উদ্যোগে 

তাদের কেউ এই রাজ্যে পাঁচ বা দশ বছর ধরে সরকার পরিচালিত হোমগুলিতে রয়েছেন। তারা সকলেই বেআইনি অনুপ্রবেশকারী হিসেবে এদেশে প্রবেশ করেছিলেন। তারা সকলেই রোহিঙ্গা মুসলিম। এতদিন তাদের কোনো পরিচয় পত্র বা নাগরিকত্বের প্রমাণপত্র ছিলো না। কিন্তু রাজ্য সরকারের উদ্যোগে রাষ্ট্রসংঘের সহায়তায় মোট ২৩ জন নাগরিকত্ব পেলেন। এরা এবার দিল্লী বা জম্মু শরণার্থী শিবিরে থাকতে পারবেন অথবা ভারতের যে কোনো প্রান্তে স্থায়ীভাবে বাস করতে পারবে। এদের সবার বয়স ১৭ থেকে ২০ বছরের মধ্যে। উল্লেখ্য,এই ২৩ জনের মধ্যে মেদিনীপুরের হোমে ৩ জন, হাওড়ার হোমে ১৩ জন এবং মুর্শিদাবাদে ৭ জন রয়েছে। রাজ্য শিশু অধিকার রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান অনন্যা চক্রবর্তী বলেন ” রাষ্ট্রহীন রোহিঙ্গাদের একটা পরিচয় দরকার ছিল। হোমে থাকতে থাকতে তাদের মধ্যে একটা অস্থির ভাব চলে এসেছিলো। রাজ্যের উদ্যোগে তারা একটা পরিচয় পেলো। সাধারণ জীবন কাটাতে তাদের আর কোনো সমস্যা রইলো না”। এখন দেখার বিষয় রাজ্যের এই উদ্যোগের ফলে রোহিঙ্গা মুসলিমদের স্রোত এই রাজ্যমুখী হয় কিনা।

Advertisements