সাধারণতন্ত্র দিবসে নাশকতার ছক বানচাল, সেনার গুলিতে খতম ৩ জঙ্গি

army-web-3জঙ্গি দমনে বড়সড় সাফল্য পেল কেন্দ্রীয় বাহিনী।সাধারণতন্ত্র দিবসের আগে দেশে বড় মাপের জঙ্গি হামলা রুখে দিলেন সেনাবাহিনীর জওয়ানরা। সকালে জম্মু ও কাশ্মীরের পহলগামে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে তীব্র গুলির লড়াইয়ে জড়িয়ে পড়ে তিন জঙ্গি। শেষ পর্যন্ত সেনা জওয়ানদের গুলিতে তিন জঙ্গিরই মৃত্যু হয়েছে বলে খবর। জঙ্গিদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে ভারী অস্ত্রশস্ত্র। সূত্রের খবর, তিন জঙ্গির কাছ থেকেই একে-৪৭ রাইফেল উদ্ধার হয়েছে। সাধারণতন্ত্র দিবসের আগে দেশে বড় ধরনের নাশকতা চালানোর লক্ষ্যেই এদিন জঙ্গিরা অনুপ্রবেশ করেছিল বলে অনুমান সেনাকর্তাদের।

কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সূত্রে খবর, ২৬ জানুয়ারি ভারতে নাশকতা চালানোর লক্ষ্যে পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই প্রত্যক্ষভাবে মদত দিচ্ছে জঙ্গিদের। ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে সতর্কতা জারি করেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। অন্যান্য বছরের তুলনায় জঙ্গি হামলার আশঙ্কা এবছর অনেকটাই বেশি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বড় নোট বাতিলের পর জঙ্গিদের অর্থের জোগানে টান পড়েছে। তার সঙ্গে আবার কেন্দ্রীয় সশস্ত্র বাহিনীর ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’-এর দগদগে ঘা তো রয়েছেই। এই সব কিছুর ‘বদলা’ নিতে যে পাক জঙ্গি ও গুপ্তচর সংগঠন এবছর সর্বশক্তি প্রয়োগ করবে, সে বিষয়ে একরকম নিশ্চিত কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। ইতিমধ্যেই নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে দেশের সীমান্ত লাগোয়া এলাকাগুলিকে। জম্মু ও কাশ্মীরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও আঁটসাঁট করা হয়েছে। রবিবার রাতে দিল্লিতে সাধারণতন্ত্র দিবসের প্যারেডের মহড়াতেও নজিরবিহীন নিরাপত্তা ব্যবস্থা মোতায়েন রাখা হয়েছিল।