শ্রীনগরে গ্রেপ্তার ইয়াসিন মালিক, বড় ধাক্কা বিচ্ছিন্নতাবাদীদের কাছে

yasin_webবড়সড় ধাক্কা খেল কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। জম্মু-কাশ্মীর লিবারেশন ফ্রন্ট বা জেকেএলএফ চেয়ারম্যান ইয়াসিন মালিককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাকে শ্রীনগরের সেন্ট্রাল জেলে রাখা হয়েছে। অন্য দিকে, হুরিয়াত কনফারেন্স নেতা মিরওয়াইজ ওমর ফারুককে গৃহবন্দী করা হয়েছে। গৃহবন্দী বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা সৈয়দ আলি শাহ গিলানিও। দিল্লিতে একটি বিক্ষোভ কর্মসূচি সংগঠিত করার পরিকল্পনা ছিল তাঁদের। প্রসঙ্গত, এই তিনজনেরর নেতৃত্বেই শনিবার (৯ই সেপ্টেম্বর) এনআইএর সদর দপ্তরের সামনে অবস্থান বিক্ষোভের  কর্মসূচি ছিল বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাদের। শ্রীনগরের বিভিন্ন জায়গায় এনআইএ-র তল্লাশির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে এই বিক্ষোভ দেখানোর কথা ছিল। তাদের আরও অভিযোগ, প্রায় প্রতিদিনই তল্লাশির নামে কাশ্মীরের সাধারণ মানুষকে হয়রান করছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। প্রতিদিন চাপানো হচ্ছে নতুন নতুন ধারায় মামলা।

ওই কর্মসূচি বন্ধ করতেই মূলত এই ধরপাকড় বলে এনআইএ সূত্রের খবর। ইতিমধ্যে পুরনো শ্রীনগরে কারফিউ জারি করা হয়েছে। কারফিউ চলছে শ্রীনগরের ছটি থানা এলাকায়।ইয়াসিন মালিক এনআইএকে ‘গব্বর সিং’ বলে কটাক্ষ করেছিলেন। তার অভিযোগ, ‘শোলে’ সিনেমার গব্বরের মতো এনআইএকে দিয়ে কাশ্মীর উপত্যকার সাধারণ মানুষকে ভয় দেখাচ্ছে কেন্দ্র। তাদের স্বাধীনতা কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। এদিকে মিরওয়াইজ ওমর ফারুকের গৃহবন্দীর কড়া সমালোচনা করেছে হুরিয়াত কনফারেন্স। হুরিয়াতের এক মুখপাত্র জেকেএলএফ চেয়ারম্যান মহম্মদ ইয়াসিন মালিকের গ্রেপ্তারির তীব্র নিন্দা জানিয়ে একে ‘রাষ্ট্রীয় নিপীড়ন ও রাজনৈতিক প্রতিহংসা’ বলে অভিহিত করেন। এদিকে শুক্রবার থেকেই কাশ্মীর বার অ্যাসোসিয়েশন তাদের কর্মবিরতি শুরু করেছে। বার অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান মিয়ান কায়ুমকে বৃহস্পতিবার সাত ঘন্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করে এনআইএ। এরই প্রতিবাদে চলছে কর্মবিরতি। যদিও এই প্রতিবাদ কর্মসূচিতে দমছে না কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। সূত্রের খবর উপত্যকা জুড়ে জারি থাকবে তল্লাশি অভিযান। প্রয়োজনে চলবে গ্রেপ্তারি।এদিকে, শনিবার নতুন করে সংঘর্ষ শুরু হয়েছে বারামুল্লা জেলার সোপোরে। সেনা জঙ্গি সংঘর্ষে নিহত হয়েছে এক জঙ্গি।

Advertisements