ভারতে হামলা চালাতে জঙ্গিদের এক কোটি টাকা ‘ইনাম’ পাকিস্তানের

pakistan_webনিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে এ দেশে জঙ্গিদের অবৈধ উপায়ে ঢুকতে উৎসাহ দিচ্ছে পাকিস্তান৷ শুধু তাই নয়, ভারতে অনুপ্রবেশ করে হামলা চালাতে পারলে জঙ্গি পিছু এক কোটি টাকা করে পুরস্কারও ঘোষণা করেছে ইসলামাবাদ৷ ফিদায়েঁ বিস্ফোরণে মারা গেলে জঙ্গিদের পরিবারকে মোটা অর্থের ক্ষতিপূরণ দেবে পাকিস্তান৷ সংবাদসংস্থা এএনআইয়ের কাছে এই বিস্ফোরক তথ্য ফাঁস করে দিয়েছেন পাক অধিকৃত কাশ্মীরের ‘জম্মু ও কাশ্মীর আমান ফোরাম’-এর নেতা সর্দার রইস ইনকিলাবি৷

তিনি বলেছেন, “খুনে, জঙ্গিদের ভাড়া করছে পাকিস্তান৷ নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতে ঢুকে জঙ্গিদের এক কোটি টাকা করে ইনাম দিচ্ছে ইসলামাবাদ৷ জঙ্গিদের বলছে, গায়ে বোমা বেঁধে ঢুকে যাও ভারতে৷ পাকিস্তানের জন্যই আজ দু’দেশের মধ্যে উত্তেজনা চরমে উঠেছে৷ গুলি চালানোর এত শখ থাকলে সেনা বনাম সেনা যুদ্ধ হোক না!”

পাকিস্তানের জঙ্গি নীতির পর্দা ফাঁস করে দিয়ে ইনকিলাবি আরও জানিয়েছেন, খোদ নওয়াজ শরিফের প্রশাসন যে যে জঙ্গি গোষ্ঠীদের পাকিস্তানের মাটিতে নিষিদ্ধ বলে ঘোষণা করেছে, আইন বাঁচিয়ে তাদেরই পাক অধিকৃত কাশ্মীরে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে৷ অপারেশনের জন্য তৈরি করা হচ্ছে৷ তৃণমূল স্তর থেকে ওই জঙ্গিদের প্রশিক্ষণে সাহায্য করছে কুখ্যাত পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই ও পাক রেঞ্জার্স৷ পাক অধিকৃত কাশ্মীর জঙ্গিদের কাছে ‘মুক্তাঞ্চল’ বলেও দাবি করেছেন ইনকিলাবি৷ তাঁর যুক্তি, জঙ্গিদের উপর ‘ব্ল্যাঙ্কেট ব্যান’ বা ছদ্ম নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে রেখেছে ইসলামাবাদ৷

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের রিপোর্ট মোতাবেক, লস্কর-ই-তৈবা, লস্কর-ই-ঝাংগভি, হিজবুল মুজাহিদিন-সহ অন্যান্য পাক জঙ্গি গোষ্ঠীর প্রায় ১০০ জনেরও বেশি সদস্য পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ঘাঁটি তৈরি করে অপেক্ষা করছে৷ কোনও সুযোগ পেলেই ভারতে ঢুকে হামলা চালাতে পারে জঙ্গিরা৷ রবিবারই জম্মু ও কাশ্মীরে শহিদ দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ এসে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং স্পষ্ট করে দিয়েছেন, পাকিস্তান নিজেদের শুধরে নিতে না পারলে ভবিষ্যতে ভেঙে ১০ টুকরো হয়ে যাবে৷ ইনকিলাবির কাছ থেকে আরও জানা গিয়েছে, পাক সরকার জঙ্গিদের এই বলে আশ্বস্ত করেছে যে, পাক রেঞ্জার্সের রসদ ও অস্ত্র তারা ভারতের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে পারবে৷ এখন সে দেশেরই এক নেতা পাকিস্তানের এই বিপজ্জনক দু’মুখো নীতি প্রকাশ্যে এনে ফেলায় এখন যথেষ্ট অস্বস্তিতে ইসলামাবাদ৷

Advertisements