পুলিশকর্মীদের ইস্তফা ঘোষণা করতে হবে মসজিদে গিয়ে, হুমকি জঙ্গিদের

Kashmir-Mosque_web.jpgচাকরি ছাড়তে হবে। সেই সঙ্গে স্থানীয় মসজিদে গিয়ে মাইকে ইস্তফা দেওয়ার কথাও ঘোষণা করতে হবে। এভাবেই পুলিশকর্মীদেরর বাড়িতে ঢুকে হুমকি দিল জঙ্গিরা। ঘটনাটি ঘটেছে জম্মু-কাশ্মীরের সোপিয়ান জেলায়। মোট তিনটি গ্রামের সাত পুলিশকর্মীর বাড়িতে ঢুকে এই হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে খবর। জানা গিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার রাতে জঙ্গিদের তিনটি দল হাজিপোরা, ল্যান্ডোরা এবং চোটিগাঁও গ্রামে ঢুকে পড়ে। তারপর পুলিশ কর্মীদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভেঙে দেয় জানলার কাচ। দেওয়া হয় হুমকিও।
এই প্রসঙ্গে একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জম্মু-কাশ্মীরের পুলিশের প্রধান এস পি ভায়িদ বলেন, গোটা বিষয়টি সামলাতে আলাদা পরিকল্পনা করা হয়েছে। তবে সেটা এখনই প্রকাশ্যে জানাতে চাননি তিনি। এদিকে পুলিশের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক বলেন, ‘ওই ঘটনার সময় দুই পুলিশকর্মী বাড়িতে ছিলেন। তাঁদের স্থানীয় মসজিদে গিয়ে ইস্তফার কথা ঘোষণা করার হুমকি দেওয়া হয়। এমনকী পুলিশে চাকরি করার জন্য ক্ষমা চাইতেও বলা হয়। তবে আমরা এই ধরণের কোনও ইস্তফা গ্রহণ করব না।’ এছাড়া জঙ্গিদের প্রকাশিত এক ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, পুলওয়ামার এক পিডিপি কর্মী রাজনীতি করার জন্য এবং রাজনৈতিক দলের সদস্য হওয়ার জন্য ক্ষমা চাইছেন। একইরকমভাবে সোপিয়ানে চোওয়ান গ্রামেরও একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে জঙ্গিরা।
চলতি বছরের মার্চ মাস থেকেই জঙ্গিরা মাঝেমধ্যে পুলিশ কর্মীদের বাড়িতে ঢুকে হুমকি দিচ্ছিল। পুলিশে চাকরি করার জন্য ক্ষমা চাইতেও জোর করছিল। যার পরিপ্রেক্ষিতে ভায়িদ একবার কড়া হুঁশিয়ার দেন সন্ত্রাসবাদীদের। বলেন, ‘সন্ত্রাসবাদীরা যেন ভুলে না যায় তাদেরও একটি পরিবার রয়েছে।’ কিন্তু ভায়িদের এই হুঁশিয়ারিও কাজে আসেনি। এখনও একই কাজ করে চলেছে তারা। পুলিশের রেকর্ড অনুযায়ী, কাশ্মীরে প্রায় ২১৪ জন সন্ত্রাসবাদী রয়েছে। যার মধ্যে ৮০ জন বিদেশি।