পরমাণু বিজ্ঞানীদের সঙ্গে বৈঠকে ভারত, কোনঠাসা পাকিস্তান

7বিশ্বের বাজারে কোনঠাসা হচ্ছে ইসলামাবাদ। সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে ইতিমধ্যে ভারতের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে রাশিয়া, আমেরিকা, জার্মানি। ফলে চাপ আরও বেড়েছে প্রধানমন্ত্রী শরিফের। তাতে মাথাব্যাথা এতটাই বেড়েছে যে পাকিস্তান নাকি পরমাণু অস্ত্র নিয়ে নাড়াচাড়া শুরু করে দিয়েছে, এমনটাই আশঙ্কা প্রকাশ করেছে আমেরিকা। মার্কিন প্রশাসন এই বিষয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করে আরও বলেছে, পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ও অন্য সেনা অফিসাররা বিগত ১৫ দিনে বারংবার পরমাণু অস্ত্র প্রয়োগের হুমকি দিয়ে চলেছেন। এটা আন্তর্জাতিক রীতি ও নীতির পরিপন্থী। পাকিস্তান এভাবে অত্যন্ত দায়িত্বজ্ঞানহীন মন্তব্যই করছে। প্রসঙ্গত, গতকাল মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদের ডেমোক্রাট প্রার্থী প্রাক্তন বিদেশসচিব হিলারি ক্লিন্টন স্বয়ং পাকিস্তানের পরমাণু অস্ত্র নিয়ে চরম আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, পাকিস্তানের পরমাণু অস্ত্র জেহাদিদের হাতে চলে যেতে পারে। যদিও হুঁশিয়ারিকে কোনওভাবেই হালকাভাবে নিতে নারাজ ভারত। জানা গিয়েছে, গত কয়েকদিনে ভাবা পরমাণু সংস্থার বিজ্ঞানীদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেছে কেন্দ্রীয় সরকারের শীর্ষ আধিকারিকরা। মনে করা হচ্ছে, গবেষকদের সঙ্গে এই দীর্ঘ আলোচনাতে পরমাণু বিষয় নিয়েই আলোচনা হয়েছে। পাকিস্তানের আচমকা যে কোনও পরিস্থিতির যোগ্য জবাব যাতে ভারত দিতে পারে, সেজন্যেই মোদী সরকার আগাম প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকদের একাংশ।

অন্যদিকে, একা আমেরিকাই নয়, রাশিয়াও গতকালের পর আজ বিবৃতি দিয়ে বলেছে, পাকিস্তান যেন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়। অযথা ভারতকে হুমকি দিয়ে পরিস্থিতি যেন ঘোরালো না করে পাকিস্তান। জার্মানিও আন্তর্জাতিক মহলের সন্ত্রাসবাদ বিরোধী অবস্থানের সঙ্গে মানানসই শব্দ ব্যবহার করতে বলেছে পাকিস্তানকে। ব্রিটেন পাকিস্তানকে সংযত হতে বলেছে।

Advertisements