পরপর ৫টি জঙ্গি হামলায় কাঁপল কাশ্মীর, জখম ১২ জওয়ান

imagesএকই দিনে পরপর পাঁচটি জঙ্গি হানায় কেঁপে উঠল জম্মু ও কাশ্মীর৷ ১৩ই জুন, মঙ্গলবার সন্ধ্যে থেকে শুরু হয় এই আক্রমণ৷ ভোররাত পর্যন্ত দফায় দফায় বিভিন্ন অঞ্চলে হামলা চালায় জঙ্গিরা৷ এখনও হামলার আশঙ্কা থেকে গিয়েছে৷ এখনও পর্যন্ত ঘটনায় জখম হয়েছেন প্রায় ১২ জন জওয়ান৷ এছাড়াও ৪টি রাইফেল লুট করেছে জঙ্গিরা৷ পুলিশ সূত্রে খবর, অনন্তনাগ জেলায় হাই কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতির বাড়িতে হামলা চালিয়ে পাহারায় থাকা নিরাপত্তারক্ষীদের কাছ থেকে ওই অস্ত্রগুলি ছিনিয়ে নেয় জঙ্গিরা৷
এদিন, পুলওয়ামা জেলার ত্রালে একটি সিআরপিএফ ঘাঁটিতে হামলা চালায় হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গিরা৷ জওয়ানদের লক্ষ্য করে গ্রেনেড ছোড়ে তারা৷ ওই হামলায় যখন হয়েছেন নয় জওয়ান৷ পুলিশ সূত্রে খবর, সিআরপিএফ-এর ১৮০ ব্যাটালিয়নকে লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছিল সন্ত্রাসবাদীরা৷ হামলায় আহত জওয়ানদের শ্রীনগরের সেনা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ ঘটনার পর এলাকা জুড়ে শুরু হয়েছে ব্যাপক তল্লাশি অভিযান, তবে এখনও পর্যন্ত কোনও জঙ্গির হদিশ মেলেনি৷ একই দিনে, অনন্তনাগ জেলার পহেলগাঁওয়ের সিরিবাল এলাকায় সিআরপিএফ ঘাঁটি লক্ষ্য করে গ্রেনেড হামলা চালায় জঙ্গিরা৷ তবে ওই হামলায় কারও আহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি৷
কয়েক মাস ধরে উত্তাল কাশ্মীরে ক্রমশ বেড়ে উঠা জঙ্গি হামলায় গভীর উদ্বেগে নিরাপত্তামহল৷ মঙ্গলবার প্রায় সমস্ত উপত্যকা জুড়েই হামলা চালায় জঙ্গিরা৷ এদিন সোপরে ২২ রাষ্ট্রীয় রাইফেলস -এর সেনাঘাঁটি লক্ষ্য করেও গুলি চালায় সন্ত্রাসবাদীরা৷ তবে পাল্টা হামলার মুখে পালিয়ে যায় তারা৷ উল্লেখ্য, হিজবুল কমান্ডার বুরহান ওয়ানির মৃত্যুর পর থেকেই বিক্ষোভে জ্বলছে কাশ্মীর উপত্যকা৷ সেনাবাহিনীকে লক্ষ্য করে পাথর ছোড়া থেকে শুরু করে, জঙ্গি হামলায় অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে৷ ইতিমধ্যে বিতাড়িত হিজবুল জঙ্গি জাকির মুসার নেতৃত্বে উপত্যকায় জাল বিস্তার করার চেষ্টা করছে আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট৷
ক্রমাগত জঙ্গি হামলার মুখে সেনাঘাঁটিগুলির নিরাপত্তা বাড়িয়ে তোলা হয়েছে৷ যে কোনও ধরনের হামলা রুখতে সক্ষম সেনা বলে জানিয়েছেন এক শীর্ষ সামরিক আধিকারিক৷ প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহে সিআরপিএফ ক্যাম্পে হামলা চালাতে এসে সেনার গুলিতে নিকেশ হয় চার সশস্ত্র জঙ্গি৷ জম্মু ও কাশ্মীরের বান্দিপোরা জেলার সাম্বালে সেনা-জঙ্গিদের মধ্যে ভারী গুলির লড়াই চলে৷ ভোর ৩.৪৫ নাগাদ বান্দিপোরার সাম্বালে ৪৫ ব্যাটেলিয়ন সিআরপিএফ ক্যাম্পে অতর্কিতে হামলা চালায় ভারী অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত ওই ৪ পাক জঙ্গি৷ ক্যাম্পের নিরাপত্তা ভবন লক্ষ্য করে তীব্র গুলিবর্ষণ করতে থাকে জঙ্গিরা৷ কিন্তু কেন্দ্রীয় সামরিক বাহিনীও সজাগ ছিল৷ তাঁদের পাল্টা হামলায় নিকেশ হয় চার হামলাকারী৷

Advertisements