নেপাল থেকে গ্রেফতার কানপুর ট্রেন দুর্ঘটনার মাস্টারমাইন্ড আইএসআই এজেন্ট

aaattrভারতীয় গোয়েন্দারা নেপাল থেকে গ্রেফতার করেছেন ল কানপুর ট্রেন দুর্ঘটনার মাস্টারমাইন্ড আইএসআই এজেন্ট শাসমুল হুদাকে।

২০ নভেম্বর কানপুরে ইনদওর-পটনা এক্সপ্রেস লাইনচ্যুত হওয়ায় ১৫০জনের মৃত্যু হয়। পাক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের দুবাইয়ে বসবাসকারী এজেন্ট ছিল শাসমুল হুডা।ঘটনার তদন্তে নেমে এনআইএ জানতে পারেন, সেই শাসমুলই এই বিশ্রী ঘটনা ঘটিয়েছে। এই হুডা জাল ভারতীয় নোটের কারবারী হিসেবে গোয়েন্দা মহলে পরিচিত নাম, নেপালেও নেটওয়ার্ক রয়েছে তার।

সে কাঠমান্ডুতে পা রাখার সঙ্গে সঙ্গে ত্রিভুবন বিমানবন্দরেই ইনটেলিজেন্স ব্যুরো, র ও এনআইএ-র গোয়েন্দারা গ্রেফতার করেন তাকে।

এনআইএ শুধু ইনদওর-পটনা এক্সপ্রেস লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনারই তদন্ত করছে না। অন্ধ্রপ্রদেশের কুনেরু ও বিহারের পূর্ব চম্পারন জেলার ঘোড়াসাহানে ট্রেন লাইনচ্যুত হওয়া নিয়েও তদন্তে নেমেছে। গোয়েন্দাদের ধারণা, এ সব ঘটনা নিছক দুর্ঘটনা নয়, এর পিছনে বড় ষড়যন্ত্র রয়েছে। দ্বিতীয় ঘটনাটিতে রেললাইনের ধার থেকে আইইডি উদ্ধার হয়। বিহার পুলিশ এই ঘটনায় ৩ জনকে গ্রেফতার করে। ওই ৩ অভিযুক্ত ব্রজেশ গিরি নামে এক নেপালি নাগরিকের কাছ থেকে ঘোড়াসাহানের রেললাইনে বোমা রাখার জন্য ৩ লাখ টাকা পেয়েছিল। এই ব্রজেশ আইএসআইয়ের হয়ে কাজ করে বলে অভিযোগ। ব্রজেশকে গ্রেফতার করা হলে জেরায় সে জানায়, ট্রেন লাইনচ্যুত করার জন্য টাকা আসে শাসমুল হুদার কাছ থেকে।

গোয়েন্দারা জেনেছেন, আইএসআই চেষ্টা করছে দেশের বিভিন্ন জায়গায় ট্রেন লাইনচ্যুত করে বহু প্রাণহানি ঘটাতে।