চলন্ত ট্রেনে মহিলা যাত্রীকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার প্যান্ট্রি কারের কর্মী

rape_760x400এবার চলন্ত ট্রেনে এক মহিলা যাত্রীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠল প্যান্ট্রি কারের এক কর্মীর বিরুদ্ধে৷ ঘটনাটি ঘটেছে বান্দ্রা-জয়পুর আরাবল্লি এক্সপ্রেসে৷ ওই মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে আজহার খান নামে ট্রেনের প্যান্ট্রি কারের এক কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷ ধৃতের নাম আজহার খান।
জানা গিয়েছে, নির্যাতিতা ওই মহিলা বিবাহিত৷ গাজিয়াবাদে থাকেন৷ নিজের বয়ানে ওই মহিলা জানিয়েছেন, গত ১০ জুন জয়পুর যাওয়ার জন্য মুম্বইয়ের বরিভলি স্টেশন থেকে বান্দ্রা-জয়পুর আরাবল্লি এক্সপ্রেসে ওঠেন তিনি৷ ট্রেনে যথেষ্ট ভিড়ও ছিল৷ সংরক্ষিত আসন না থা্কায় বিপাকে পড়েন তিনি৷ ঠিক তখনই ট্রেনের প্যান্ট্রি কারের কর্মী আজহার খানের সঙ্গে দেখা হয় ওই মহিলার৷ ওই মহিলাকে বসার জায়গার ব্যবস্থা করে দেওয়ার কথা বলে আজহার৷ এরপরই ট্রেনের প্যান্ট্রি কারের একটি কিউবিকলে নিয়ে গিয়ে ওই মহিলাকে ধর্ষণ করে সে৷ ট্রেন জয়পুরে পৌঁছলে, আজহার খানের বিরুদ্ধে জিআরপিতে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেন ওই মহিলা৷ কিন্তু ঘটনাটি যেহেতু মুম্বই ও সুরাটের মাঝে চলন্ত ট্রেনে ঘটেছে, তাই ওই মহিলার অভিযোগটি সুরাট জিআরপি-র কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়৷ ওই মহিলাকেও জয়পুর থেকে সুরাট নিয়ে আসা হয়৷
ওই মহিলার দেওয়া বর্ণনার ভিত্তিতে গুজরাটের ভদোদরা থেকে অভিযুক্ত আজহার খানকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷ জানা গিয়েছে, উত্তরপ্রদেশের ঝাঁসির বাসিন্দা আজহার৷ রেলের সঙ্গে চুক্তির ভিত্তিতে আরাবল্লি এক্সপ্রেসে যাত্রীদের খাবার সরবরাহ করে দিল্লির একটি সংস্থা৷ সেই সংস্থাতেই চাকরি করে সে৷ সুরাট জিআরপি-র ডেপুটি সুপার পি কে দেওড়া জানিয়েছেন, অভিযোগকারিণীকে দিয়ে অভিযুক্ত আজহার খানকে শনাক্ত করানো হবে৷

Advertisements