আজান বিতর্কে সোনুকে সমর্থন, প্রকাশ্যে কোপানো হল দুই ব্যক্তিকে

sonu_webআজান বিতর্কে গায়ক সোনু নিগমের সমর্থনে কথা বলার জন্য প্রকাশ্যে কোপানো হল এক ব্যক্তিকে৷ গত ১৯শে এপ্রিল, বুধবার এই ঘটনাটি ঘটে মধ্যপ্রদেশের গোপালপুরা এলাকায়৷ আক্রান্ত ব্যক্তির নাম শিবম রাই৷
সূত্রের খবর, আজান নিয়ে গায়ক সোনু নিগমের বক্তব্যকে সমর্থন করে ফেসবুকে একটি পোস্ট করেছিলেন রাই৷ তারপরই তাঁকে ফোনে হুমকি দেয় মহম্মদ নাগরি ও ফায়জান খান নামে দুই অভিযুক্ত৷ সাংবাদিকদের রাই জানিয়েছেন, ওই অভিযুক্তদের ডাকে তিনি ও তার এক বন্ধু ফ্রিগঞ্জ নামের এক এলাকায় যান৷ সেখানেই তাদের উপর ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় ফায়জান ও মহম্মদ৷ ওই হামলায় গুরুতর জখম হয়েছেন তাঁর বন্ধু৷ ঘটনাটির তদন্তে নেমেছে পুলিশ৷ মাধবনগর থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার এম এস পারমার জানিয়েছেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধি ৩০৭ ধারায় (হত্যার চেষ্টা) মামলা রুজু হয়েছে৷ তবে অভিযুক্তরা এখনও অধরা৷
উল্লেখ্য, আজান নিয়ে ‘বিতর্কিত’ মন্তব্য করার অভিযোগে গায়ক সোনু নিগমের উপর ফতোয়া জারি করেছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু ইউনাইটেড কাউন্সিলের সহ-সভাপতি তথা মৌলবি সৈয়দ শাহ আতেফ আলি আল কাদরি৷হুমকি দিয়েছিলেন, সোনুর মাথা কামিয়ে গলায় একজোড়া ফাটা জুতোর মালা পরিয়ে গোটা দেশে ঘোরাতে পারলে ১০ লক্ষ টাকা ইনাম দেবেন। ইমামের ফতোয়ার যোগ্য জবাব দেন সোনু। নিজেই সাংবাদিক বৈঠক ডেকে বুধবার মাথার সব চুল কেটে ফেলেন তিনি। তারপর দাবি করেন, তাঁর ঘনিষ্ঠ আলিম ভাইকে যেন ওই ১০ লক্ষ টাকা দিয়ে দেওয়া হয়। সোনুর এই সাহসিকতার প্রশংসায় মুখর হয়ে ওঠেন বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় সোনুকে সমর্থন জানিয়ে একের পর এক পোস্ট ছড়িয়ে পড়ে। তখনই বেগতিক বুঝে সংবাদ সংস্থা এএনআইকে কাদরি জানান, তিনটের মধ্যে একটি শর্ত পূরণ হয়েছে। বাকি শর্ত পূরণ করলে তবেই মিলবে ইনাম।

Advertisements