২ কোটি টাকার সোনা উদ্ধার, ধৃত ৩জনের জেল হেফাজত

তিন সোনা পাচারকারীকে গত ৮ই সেপ্টেম্বর, শুক্রবার গ্রেপ্তার করল শুল্ক দপ্তর। তাদের কাছ থেকে পাওয়া যায় ৪০টি সোনার বিস্কুট এবং ১০টি সোনার বাট। যার বাজারমূল্য ২ কোটি ৪ লক্ষ ৪৫ হাজার ৩৩৫ টাকা। উত্তর ২৪ পরগনার বাসিন্দা ওই তিন ধৃতের নাম ইন্দ্রজিৎ বিশ্বাস, রবিউল ইসলাম ও সেলিম মোল্লা। শনিবার ধৃতদের ব্যাঙ্কশাল কোর্টে হাজির করা হয়। শুল্ক দপ্তরের তরফে আইনজীবী তাপস বসু ধৃতদের জামিনের তীব্র আপত্তি জানান। তিনি বলেন, এই সোনা পাচারের পিছনে কোন চক্র জড়িত আছে, তা খতিয়ে দেখা দরকার। তাই ধৃতরা জামিন পেলে মামলা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। উভয় পক্ষের বক্তব্য শোনার পর বিচারক ধৃতদের আগামী ২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জেল হেপাজতে রাখার নির্দেশ দেন। অন্যদিকে, তদন্তের স্বার্থে ধৃতদের জেলে গিয়ে জেরা করার বিষয়ে আদালতের কাছে আবেদন জানানো হয়। বিচারক সেই আবেদন মঞ্জুর করেন।
আদালত সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার বাসন্তী হাইওয়ে দিয়ে কলকাতা ই এম বাইপাসে ঢোকার মুখেই শুল্ক দপ্তরের অফিসারদের হাতে ধরা পড়ে যায় ওই তিন সোনা পাচারকারী। তাদেরকে তল্লাশি করে ওই বিপুল টাকার সোনা উদ্ধার হয়। ওই সোনা বাংলাদেশ থেকে হাত ফেরতা হয়ে কলকাতায় আসছিল। বড়বাজারের এক ব্যবসায়ীর কাছে এই সোনা পাচার করার কথা ছিল অভিযুক্তদের। কিন্তু গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শুল্ক দপ্তরের অফিসাররা ই এম বাইপাসে প্রগতি ময়দান এলাকার কাছ থেকে ওই তিন সোনা পাচারকারীকে হাতেনাতে পাকড়াও করেন। শুল্ক দপ্তরের আইনজীবী এদিন আদালতে সওয়ালে বলেন, এর আগেও এই অভিযুক্তরা বাংলাদেশ থেকে ৩০ কেজি সোনা শহরের বিভিন্ন জায়গায় পাচার করেছিল।

Advertisements