স্কুলে টুপি পরে আসতে দিতে হবে এবং পশ্চিম মুখী সব বাথরুম ভেঙে ফেলতে হবে : দাবী মুসলিম পড়ুয়াদের

qqqqqqqqqqqqqqqqqqqqqগত ১৬ই মার্চ ও ১৭ই মার্চ নন্দীগ্রামে ভয়ংকর ঘটনা ঘটে গেছে। দূরের মানুষ জানতে পারেনি।
নন্দীগ্রামের আদর্শ ধান্যখোলা আদর্শ বিদ্যাভবন হাই স্কুল।
এর আগেও কয়েকবার স্কুলের কিছু মুসলিম ছাত্র জাল টুপি পরে স্কুলে আসায় প্রধান শিক্ষক নিষেধ করেন। তিনি ছাত্রদেরকে বলেন, এটা তো মাদ্রাসা নয় ! তাই এখানে স্কুলের নির্দিষ্ট পোশাক ( সাদা – মেরুন) পরেই আসতে হবে। ছাত্ররা তা মেনে নিয়েছিল। কিন্তু গত ১৬ই মার্চ বেশ কিছু সংখ্যায় মুসলিম ছাত্রছাত্রীরা মাথায় জাল টুপি ও কালো ওড়না (হিজাব) পরে আসে। প্রধান শিক্ষক আবার নিষেধ করেন।ওইদিন আবার একাদশ শ্রেণীর পরীক্ষা ছিল। ফলে তুলকালাম বেঁধে যায়। বহু সংখ্যায় ছাত্রদের অভিভাবক ও অন্যান্য মুসলিম স্কুলে হামলা করে। ব্যাপক ভাঙচুর। বেঞ্চি, চেয়ার-টেবিল, কম্পিউটার ভাঙা হয়। প্রধানশিক্ষক পবিত্র মাইতি বেধড়ক মার খান।
হামলাকারীরা স্কুলের বাথরুমটাও ভেঙে ফেলে। কারণ ওই বাথরুমের দরজা ছিল পশ্চিমমুখী।
পুলিশ আসে। আসেন পুলিশের বড়কর্তারা এবং মুসলিম সমাজের মাওলানা ও জামাত ইসলামের নেতারা। আপোষ মীমাংসা হয়। প্রধান শিক্ষক নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেন এবং মুসলিম ছাত্রছাত্রী ও মাওলানাদের সব দাবী মেনে নেন।
১) ছাত্রছাত্রীরা মুসলিম টুপি ও হিজাব পরে লাগিয়ে স্কুলে আসতে পারবে।
২) প্রতি শুক্রবার মুসলিম ছাত্রদের নামাজ পড়ার জন্য এক ঘন্টা ছুটি দেওয়া হবে।
৩) স্কুলে নবী দিবস পালিত হবে।
৪) বাথরুম পুরো ভেঙে দিয়ে উত্তরমুখী করে দরজা বসানো হবে।

Advertisements