যৌন অত্যাচারের বিবরণ দিতে হয় বাবা-মাকে, ISIS-এর নির্যাতনের অভিজ্ঞতা জানাল ইয়াজিদি তরুণী

“দিনভর নানা রকম লোক আসে৷ তাদের সঙ্গে আমাদের যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হতে বাধ্য করা হয়৷ চাকরের মতো খাটায় আমাদের৷ পান থেকে চুন খসলে মারধর তো বটেই, আগ্ণেয়াস্ত্র উঁচিয়ে প্রাণে মারার হুমকি দেওয়া হয়৷” ইসলামিক জঙ্গি সংগঠন ISIS-এর এমনই নৃশংস ও ভয়াবহ অত্যাচারের কথা উঠে এল অপহৃত এক  ইয়াজিদি নাবালিকার বক্তব্যে৷

ইসলামিক স্টেট জঙ্গিদের দাবি, তারা মহিলাদের সম্মান করে। এই নাবালিকা কিশোরীর জীবনের সমস্ত অভিজ্ঞতাই জঙ্গিদের দাবি খারিজ করে দিয়েছে৷ গত ৩ আগস্ট ইরাকের সিনজর থেকে জঙ্গিরা তাকে অপহরণ করে৷ মেয়েটির বাবা-মা কুর্দিস্তানের বাসিন্দা৷ তাঁদের কাছ থেকে ফোন নম্বর পেয়ে এই কিশোরীর সঙ্গে কথা বলে একটি ইটালিয়াম সংবাদপত্র সংস্থা৷ অপহরণকারীদের এখানে কীরকম জীবন কাটাচ্ছে, তা বিশ্বকে জানাতে এই সাক্ষাত্কারের অনুমতি দেওয়া হয়৷

মেয়েটি জানিয়েছে, সে যেখানে বন্দি সেখানে ১২-৩০ বছরের ৪০ জন মহিলা  রয়েছে৷ অস্ত্র দেখিয়ে তাদের আটকে রাখা হয় অন্ধকার ঘরে৷ সেখানেই চলে যৌন নির্যাতন৷ কখনও সিরিয়া থেকে লোকেরা আসে৷ তাদের সঙ্গে যৌন সংসর্গে বাধ্য করা হয় সদ্য কিশোরীদের৷ সেই অত্যাচার দিনের পর দিন সহ্য করতে করতে কথাই বন্ধ হয়ে গিয়েছে কয়েকজনের৷  অন্ধকার ঘরে দিনের পর দিন, রাতের পর রাত এক অব্যক্ত যন্ত্রণায় দিন কাটছে তার  মতো আরও অনেক মেয়েদের৷ শুধু এই অত্যাচারেই শেষ নয়৷  মেয়েদের হাতে ফোন ধরিয়ে জোর করে বাবা-মাকে ফোন করে এই যৌন অত্যাচারের কাহিনি বলতে বাধ্য করা হয়৷

অ্যামনেস্টি ইণ্টারন্যাশনালের রিপোর্ট বলছে ইসলামিক এই জঙ্গিরা শেষ মাসে সিরিয়া থেকে হাজারেরও বেশি বিভিন্ন্ বয়সী মেয়েদের অপহরণ করে নিয়ে গিয়েছে৷

দেশের বুদ্ধিজীবী মহল কিন্তু মুখে কুলুপ এঁটে বসে আছেন। এঁরাই কিছুদিন আগে প্যালেস্টাইনের মহিলা এবং শিশুদের উপর ইজরাইলের রকেট হানায় কুম্ভীরাশ্রু বিসর্জন করছিলেন। ভারতের মুসলিম নেতাদের অবশ্য চুপ থাকারই কথা। কারণ অমুসলমান মহিলারা ইসলামের দৃষ্টিতে গনিমতের মাল। এবং ইসলাম তাদের প্রতি এই ব্যবহারকে জায়েজ মনে করে।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s