ম্যাজিস্ট্রেটের ছেলে পরিচয় দিয়ে ছাত্রীকে অপহরণের চক্রান্ত দুর্গাপুরে, উত্তম মধ্যম দিয়ে তুলে দেওয়া হল পুলিশের হাতে

ফেসবুকে ফেক প্রোফাইল বানিয়ে এক ছাত্রীকে ট্র্যাপ করে তাঁর সাথে প্রথমে বন্ধুত্ব আর তারপর সেই বন্ধুত্ব থেকে সেই ছাত্রী বেঁকে বসলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি। এরপর উত্যক্তকারীকে ফাঁদ পেতে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া। শুনে মনে হচ্ছে কোনো সিনেমার গল্প? কিন্তু এ কোনো সিনেমার গল্প নয়। এটি বাস্তবের ছবি আর তা খোদ শিল্পাঞ্চল দুর্গাপুরের ঘটনা।

দুর্গাপুরের ইস্পাত কলোনীর বাসিন্দা জাহাঙ্গীর নামে পেশায় রঙ মিস্ত্রি এক যুবক ফেসবুকে সাগর সেন নামে একটি ফেক প্রোফাইল বানিয়ে দুর্গাপুরে চন্দীদাসের বাসিন্দা, এক নামী ইংরেজী মাধ্যম স্কুলের ক্লাস নাইনের ছাত্রীর সাথে আলাপ জমায়। সাথে সে নিজেকে ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটের ছেলে বলেও পরিচয় দেয়। এরপর বন্ধুত্ব আরো এগোনোর পর ওই ছাত্রী বুঝতে পারে যে সে মিথ্যে পরিচয় দিয়েছে। বন্ধুত্ব এগিয়ে নিয়ে যেতে অস্বীকার করে ছাত্রী। তারপর থেকেই জাহাঙ্গীর ওই ছাত্রীকে উত্যক্ত করতে শুরু করে। এমনকি তাঁর স্কুলের আসে পাশে ঘোরাঘুরি শুরু করে। সাথে তাকে ও তার পরিবারকে ক্রমাগত প্রাণনাশের হুমকি দিতে থাকে। অবস্থা ক্রমশ জটিল হচ্ছে বুঝতে পেরে ছাত্রীর পরিবার এলাকার তৃনমূল অফিসে যোগাযোগ করে পুরো বিষয়টি জানান। এরপর ১০নং ওয়ার্ডের নব নির্বাচিত কাউন্সিলর রাজীব ঘোষের উদ্যোগে ফাঁদ পেতে আজ বি-জোনের ভারতী থেকে অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর ও তার এক সাগরেদ কুরবান কুরেসিকে ধরে ১নং ব্লক অফিসে নিয়ে আসা হয়। সাথে খবর দেওয়া হয় ছাত্রী ও তার পরিবারকে। তাঁরা এসে চিহ্নিত করে অভিযুক্তদের। এরপরেই শুরু হয় উত্তম মধ্যম। তারই মাঝে খবর যায় থানায়। বি-জোন ফাঁড়ির পুলিশ এসে অভিযুক্ত দু’জনকে প্রথমে বি-জোন ফাঁড়ি পরে দুর্গাপুর থানায় নিয়ে যায়। সাথে জানা গেছে যে অভিযুক্ত দুজনের সাথে আরো দু’জন যুবক জড়িত রয়েছে। তাদের খোঁজে তল্লাশী শুরু করেছে পুলিশ।

সৌজন্যে aamar katha(news portal) aamarkatha.com

Advertisements