মন্দির বাঁচাতে হাতে বন্দুক তুলে নিচ্ছেন পুরোহিতরা

imagesমন্দিরের দামি গহনা ও বিগ্রহ বাঁচাতে হাতে বন্দুক তুলে নিচ্ছেন হিমাচল প্রদেশের বহু পুরোহিত। রাজ্য সরকার তাদের অস্ত্রের লাইসেন্সও দিয়ে দিচ্ছে। গত কয়েক বছরে হিমাচল প্রদেশের বিভিন্ন জায়গায় খুন হয়েছেন একাধিক মন্দিরের পুরোহিত ও নিরাপত্তারক্ষী। চুরি ‌যায় একাধিক মন্দিরের বিগ্রহ ও গহনা। ২০১৩ সালে সিমলার এক গ্রামে চোররা শুধুমাত্র মন্দিরের মূল্যবান সামগ্রী চুরি করেই ক্ষান্ত হয়নি, মন্দিরের নিরাপত্তারক্ষীকেও খুন করে। গত ১০ বছরে রাজ্যের ১৫০টি মন্দিরে লুঠপাট চালিয়েছে চোররা।

রাজ্যের কুলু জেলায় ২০০টি গুরুত্বপূর্ণ মন্দির রয়েছে। এদের মধ্যে কয়েক ডজন মন্দিরে চুরি হয়েছে। ফলে বাধ্য হয়েই পুরোহিতরা হাতে বন্দুক তুলে নিচ্ছেন।রাজ্যের রঘুনাথ মন্দিরের বিগ্রহটি বহু পুরোনো। মন্দিরের রয়েছে বহু মূল্যবান গহনা। তাই ওই মন্দিরের সম্পদ রক্ষায় বন্দুক হাতে তুলে নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মন্দিরের কেয়ারটেকার দাবে রাম। তিনি আরও জানান, মন্দিরে সিসি টিভি বসানোর পর আমরা সরকারের কাছে বন্দুকের লাইসেন্সের জন্য আবেদন করি। সরকার খুব সহজ শর্তে আমাদের লাইসেন্সও দিয়েছে।