ভুয়ো পরিচয়ে প্রতারণা, গ্রেফতার

images.jpgসোশ্যাল মিডিয়ায় বন্ধুত্ব করে টাকা খোয়ালেন এক মহিলা। মহিলার অভিযোগ, সোশ্যাল মিডিয়ার ওই বন্ধুকে ৯ লক্ষ টাকারও বেশি ধার দিয়ে আর ফেরত পাননি তিনি। উল্টে সেই ব্যক্তি তাঁর সঙ্গে যোগাযোগও বন্ধ করে দিয়েছিলেন। পরে বিধাননগর সাইবার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। তাঁর দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে।
পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই ব্যক্তির আসল নাম সফির খান। ওই মহিলাকে প্রতারণার উদ্দেশেই সফির নাম ভাঁড়িয়ে বন্ধুত্ব করেন তাঁর সঙ্গে।
পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ফেসবুকে অ্যাডাম মুল্যার নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে বিধাননগরের বাসিন্দা ওই মহিলার আলাপ হয়। সেই পরিচয় সূত্রে প্রায়ই চ্যাট করতেন তাঁরা দু’জনে। পুলিশের কাছে মহিলার অভিযোগ, নেপাল সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের ঠিকাদারি নিয়ে কাজ করেন বলে অ্যাডাম তাঁকে জানিয়েছিলেন। মাস ছ’য়েক আগে অ্যাডাম ওই মহিলাকে জানায়, ব্যবসার জন্য তাঁর জরুরি ভিত্তিতে ৯ লক্ষ ১০ হাজার টাকা দরকার। মহিলা কোনও রকম সন্দেহ না করেই বন্ধুকে ওই টাকা ধার দিয়ে দেন।
পুলিশকে মহিলা অভিযোগে জানিয়েছেন, অ্যাডাম আশ্বাস দিয়েছিল পরে টাকা পেলেই সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে ফেরত দিয়ে দেবে।
অ্যাডামের কথায় বিশ্বাস করে ওই মহিলা তাঁকে টাকা পাঠিয়ে দেন। কিন্তু টাকা পেয়ে যাওয়ার পর থেকেই আর অ্যাডামের সঙ্গে কোনও ভাবে যোগাযোগ করতে পারছিলেন না ওই মহিলা। অবশেষে বিধাননগর কমিশনারেটের সাইবার থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ তদন্ত করে অ্যাডাম ওরফে সফির খানকে গ্রেফতার করে।

Advertisements