বেলডাঙায় পুলিশকে মারধর করল মাদ্রাসার পড়ুয়ারা

msdmadrasaপাশের স্কুলকে উচ্চমাধ্যমিক স্তরে উন্নীত করা হয়েছে, মাদ্রাসাকে কেন করা হল না? এই দাবিতেই বিক্ষোভ পড়ুয়াদের। আর সেই বিক্ষোভ সামলাতে গিয়ে মার খেল পুলিশ। ঘটনাটি বেলডাঙার কাজিশা হাই মাদ্রাসার। পুলিশের জিপে ভাঙচুর করা হয়। এমনকি মাদ্রাসার শিক্ষকদের একটি ঘরে আটকে রেখেও চলে ভাঙচুর। গোটা ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রীয়তার অভি‌যোগ তুলেছেন প্রধান শিক্ষক।
জানা গিয়েছে. মাদ্রাসাটিকে ২০০৯ সালে মাধ্যমিক স্তরে উন্নীত করা হয়েছিল। কয়েকদিন আগে কাজিশা মাদ্রাসা ও পাশের নওপুকুরিয়া স্কুলে প‌র্যবেক্ষণ করা হয়। কিন্তু নওপুকুরিয়া স্কুলটিকে উচ্চমাধ্যমিক স্তরে উন্নীত করা হয়। কিন্তু মাদ্রাসাকে করা হয়নি। কেন মাদ্রাসকে উচ্চমাধ্যমিক করা হল না? সেই দাবিতেই বিক্ষোভ দেখান মাদ্রাসার পড়ুয়ারা। সেই বিক্ষোভ থামাতে গেলে পুলিশকে মারধর করে ছাত্ররা।
মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক পারভেজ আলমের অভি‌যোগ, ‘বেলডাঙা পুলিশ পরিস্থিতি সামলাতে ব্যর্থ। পুলিশ মারের হাত থেকে বাঁচতে আমাকে হাজির করিয়ে দেয় ছাত্রদের সামনে। অভিভাবক ও অন্য ছাত্রদের জন্য বেঁচে গিয়েছি।’
এক অভি‌যুক্ত ছাত্রের দাবি, এলাকায় উচ্চমাধ্যমিক মাদ্রাসা নেই। তাই তারা বিক্ষোভ দেখিয়েছে।

Advertisements