বজবজে ডাকাতির পর ধর্ষণ গৃহবধূকে

484975-nirbhaya-kerala-rapeগত ৩০শে জানুয়ারী বজবজ থানার অন্তর্গত দুইটা গ্রামে ভয়াবহ ডাকাতির ঘটনা ঘটলো। ডাকাতরা শুধু গৃহ সামগ্রী লুঠ করেই ক্ষান্ত হয়নি,গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগও উঠেছে তাদের বিরুদ্ধে।
ঐদিন রাট প্রায় ১টা নাগাদ বুইতার গ্রামের সুমনবাবু (নাম পরিবর্তিত)র বাড়িতে চড়াও হয় তিন জনের একটি ডাকাত দল। সুমানবাবুকে মারধর করে তারা বেঁধে ফেলে আলমারি ভেঙে যথাসর্বস্ব লুঠ করে তারা।তিনটে মোবাইল ফোন, বেশ কয়েক ভরি সোনার গহনা ও নগদ ২৬ হাজার টাকা তারা হাতিয়ে নেয়।এইসময় সুমনবাবুর স্ত্রী শ্রাবনী কুঁতি (নাম পরিবর্তিত) কে দেখে তাদের মধ্যে আদিম লালসা জেগে ওঠে। তাদের নাবালক ছেলের মাথায় বন্ধুক ধরে একে একে তিন ডাকাত শ্রাবনীদেবীকে ধর্ষণ করে। সুমানবাবুর অভিযোগ, বাইরেও দুইজন ডাকাত পাহারা দিচ্ছিল। তিনি বলেন, ডাকাতদের কাছে কাকুতি-মিনতি করলেও তারা কোন কথা শোনেনি। তার স্ত্রীর উপর পাশবিক অত্যাচার চালায়।
খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকার সাধারণ মানুষ ক্ষোভে ফেটে পড়ে, দোষীদের ধরে তাদের উপযুক্ত সাজা দেওয়ার জন্য তারা বিক্ষোভ দেখায়। সেইমতো সুমানবাবু বজবজ থানায় একটি কেস দায়ের করেন (কেস নং-৪৮/১৭, তারিখ-৩১.০১.২০১৭, ধারা ৩৯২/৩৭৬ আইপিসি)।
বজবজ থানা অভিযান চালিয়ে ৩১ তারিখ শেখ আক্রম (পিতা-শেখ অহেদ বক্স) নামক এক ব্যাক্তিকে মিঠাপুকুর বাজারের কাছ থেকে গ্রেফতার করে। শেখ আক্রম বজবজ থানার মিঠাপুকুর খানপাড়ার বাসিন্দা। ধৃত ব্যক্তির কাছ ডাকাতির বেশকিছু মাল পাওয়া গেছে। তাকে জিজ্ঞসাবাদ করে বাকিদের খোঁজ চলছে। সকলের বিরুদ্ধেই ধর্ষণ ও ডাকাতির মামলা রুজ্জু করা হয়েছে। ধৃত শেখ আক্রমকে আলিপুর আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে চোদ্দ দিনের জেল হেপাজতের নির্দেশ দেন।
শ্রাবনী দেবী পুলিশকে জানায় যে ডাকাতরা তাদের প্রতিবেশী।তাদেরকে দেখলে তিনি চিনতে পারবেন বলেও জানান।

Advertisements