নদিয়ার নাকাশিপাড়ায় মন্দিরের পাশে গরুর মাংস ফেলা নিয়ে হিন্দু-মুসলিম সংঘর্ষ

nadiaগতকাল ১৬ ই সেপ্টেম্বর, শনিবার রাতে নদিয়ার নাকাশিপাড়ায় মন্দিরসহ বেশ কয়েকটি বাড়ির পাশে গরুর মাংস ফেলাকে কেন্দ্র করে হিন্দু ও মুসলমানের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।এতে ১২ জন হিন্দু আহত হয়েছেন। মুসলমানের তরফে আহতদের সংখ্যা জানা যায়নি।  ঘটনার সূত্রপাত ১৫ ই সেপ্টেম্বর, শুক্রবার  বিকেলে। ঐদিন স্থানীয় মন্দিরের পাশে প্লাষ্টিক ক্যারিব্যাগে করে(পাশের ছবিটিতে তা স্পষ্ট) কে বা করা গরুর মাংস ফেলে যায়।নাকাশিপাড়া গার্লস হাই স্কুল, রাধাগোবিন্দ মন্দির, ষষ্ঠীতলা কালী মন্দির ও মঠবাড়ি দুর্গামণ্ডপে গরুর মাংস ফেলা হয়।  তার প্রতিবাদে স্থানীয় কিছু হিন্দু দলবদ্ধভাবে থানায় যান অভিযোগ জানাতে। অভিযোগ, সেখানে স্থানীয় কিছু মুসলিম থানায় হাজির হয়ে হিন্দুদের শাসাতে থাকে। এনিয়ে দুইপক্ষের মধ্যে বচসা ও হাতাহাতি হয়। কিন্তু সন্ধ্যা নামতেই মুসলিমরা আলো নিভিয়ে নাকাশিপাড়ার তৈবিচরা, পাটিকাবাড়ি ও ধনঞ্জয়পুর গ্রাম আক্রমণ করে মুসলমানেরা। হিন্দুরাও প্রতিরোধ গড়ে তোলে। এতে সংঘর্ষ চরম আকার ধারণ করে। আক্রমণে অনেক হিন্দু আহত হয়।  তাদের মধ্যে তিনজনকে শক্তিনগর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়াতে তাকে কলকাতার পিজি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এলাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন রয়েছে।

Advertisements