দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে যুবতীকে ধর্ষণের চেষ্টা কলকাতায়

কলকাতার ট্যাংরা এলাকায় ১৮ বছরের ছাত্রীর বাড়ির দরজা ভেঙ্গে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা করলো মহঃ আলি এবং সাকির আলি। সাহসী মেয়েটির কাছে বাধা পেয়ে প্রচন্ড মারধর করা হল তাকে। শেষে মেয়েটির তলপেটে লাথি মেরে পালিয়ে গেল দুষ্কৃতিরা। রক্তাক্ত অবস্থায় এন আর এস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে মেয়েটিকে। হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে আঘাত গুরুতর। পুলিশ এখন পর্যন্ত একজনকে আটক করতে পেরেছে বলে জানা গেছে। এলাকাবাসীর বক্তব্য, অভিযুক্তরা সকলেই তৃণমূলের সমর্থক এবং স্থানীয় তৃনমূল নেতাদের মদতপুষ্ট।

মেয়েটি গত ১৪ জুলাই,সোমবার রাত প্রায় ১০-৩০ নাগাদ প্রাইভেট টিউশন পড়ে বাড়ি ফিরছিল। সেই সময় রাস্তায় মহঃ আলি এবং তার সঙ্গীসাথীরা মদ্যপ অবস্থায় ঘোরাঘুরি করছিল। রাস্তায় একা পেয়ে মেয়েটির হাত ধরে একটি নির্জন স্থানের দিকে টেনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে দুষ্কৃতিরা। মেয়েটি হাত ছাড়িয়ে নেওয়ার চেষ্টায় ধাক্কাধাক্কি করলে নেশাগ্রস্ত আলি টাল সামলাতে না পেরে মাটিতে পড়ে যায়। কোন রকমে বাড়ি ফিরে মেয়েটি তার বাড়ির লোকজনকে ঘটনাটি জানায়।
মঙ্গলবার ভোর প্রায় ৪-৩০ নাগাদ মহঃ আলি এবং সাকির আলি মেয়েটির থাকার ঘরের দরজা ভেঙ্গে ঢুকে পড়ে। মেয়েটি বাধা দেওয়ায় ধস্তাধস্তি চলতে থাকে। ইতিমধ্যে বাড়ির অন্য লোকেরা বেরিয়ে এলে দুষ্কৃতিরা মেয়েটির তলপেটে লাথি মেরে পালিয়ে যায়। রক্তাক্ত অবস্থায় এন আর এস হাসপাতালে নিয়ে গেলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মেয়েটির চিকিৎসা করতে অসম্মত হয়, কারণ এটি পুলিশ কেস। তখন ঐ অবস্থায় তাকে ট্যাংরা থানায় নিয়ে গিয়ে অভিযোগ দায়ের করা হয়। এর পরে পুলিশ একজনকে আটক করেছে।

এলাকাবাসীর বক্তব্য, প্রত্যেকদিন রাতে ট্যাংরার পুরনো কসাইখানার আশপাশের এলাকা সম্পূর্ণভাবে দুষ্কৃতিদের দখলে চলে যায়। এরা সবাই তৃণমূলের সমর্থক স্থানীয় তৃণমূলের নেতাদের আশ্রিত। রাত ন’টার পরে সম্পূর্ণ এলাকা নরকে পরিণত হয়ে যায়। ঐ সময়ে মদ্যপ এবং দুষ্কৃতিদের দৌরাত্ম্যে মহিলাদের বাড়ির বাইরে বের হওয়া অসম্ভব হয়ে যায়।

একের পর এক ধর্ষণ এবং শ্লীলতাহানির ঘটনায় জর্জরিত কলকাতা। ট্যাংরার এই ঘটনা আবার প্রমাণ করল আমাদের রাজ্যের রাজধানী কলকাতা মহিলাদের জন্য মোটেই সুরক্ষিত স্থান নয়।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s