এ এক অশনি সংকেত, মনে হচ্ছে কালো অন্ধকার আসন্ন আলোর ব্যবস্থা নিজেদেরই করতে হবে…

hqdefaultনামখানা ব্লকের মৌসুনি গ্রাম পঞ্চায়েতের বালিয়াড়া গ্রামের যমুনাপল্লীতে গত ৩১শে মার্চ যা ঘটনা ঘটলো, তা হিন্দুদের জন্যে যথেষ্ট চিন্তার। গ্রামের শেখ সাত্তার (পিতা -শেখ আজিজ ) শুক্রবার শিবঠাকুরের নামে থাকা একটি ষাঁড় কেটে তার মাংস আরো অন্যদেরকে বিতরণ করে। ঘটনাটি হিন্দুরা জানতে পেরে শেখ সাত্তারের বাড়ি ঘিরে রেখে পুলিশে খবর দেয়। ফ্রেজারগঞ্জ কোস্টাল থানার পুলিশ এসে শেখ সাত্তারকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। বর্তমানে সে থানাতে আছে। পুলিশ বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসীদের শান্ত করার সবরকম চেষ্টা করছে। এক্ষেত্রে স্থানীয় কয়েকজন হিন্দু সংহতির কর্মীর কাজ যথেষ্ট উল্লেখযোগ্য । তবে হিন্দুর ওপর মুসলিমের অত্যাচার ওই গ্রামে নতুন নয়। এর আগে বালিয়াড়া কিশোর হাইস্কুল -এর স্বরস্বতী প্রতিমার মাথা কেটে নিয়েছিল মুসলিম ছাত্ররা। তখনও হিন্দুসংহতি গ্রামবাসীদের পাশে দাঁড়িয়েছিল। যার ফলে মুসলিমরা হারস্বীকার করতে বাধ্য হয়েছিল। এবারও হিন্দুসংহতি হিন্দুদের পাশে আছে। তবে বারবার একইরকম ঘটনা ঘটায় এটা বোঝা যায় যে ওই গ্রামে জিহাদি মুসলিমের উপস্থিতি আছে।