আবার মূর্তি ভাঙ্গা হল-এবার কালীমাতার মূর্তি

আবার মূর্তি ভাঙ্গা হল।এবার কালীমাতার মূর্তি। ১টা-২টা নয়। প্রায় ১৭ টা।
স্থান? সেই বাটানগর। জেলা দক্ষিণ ২৪ পরগণা।
শিয়ালদা – বজবজ লাইনে বজবজের ঠিক আগের স্টেশন ‘নুঙ্গি’ স্টেশন। ঠিক তার পাশে একটি জায়গায় একজন মূর্তিকার ঠাকুর তৈরী করেন। কালীপূজা এসে গিয়েছে। তাই মূর্তিগুলির ফিনিশিং টাচ চলছে। অনেক রাত্রি পর্যন্ত জেগে কাজ করেন ওই মূর্তিকার এবং তাঁর সহকারীরা। গতকালও অনেক রাত পর্যন্ত কাজ করে ভোরের দিকে তাঁরা ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখেন অনেকগুলি মূর্তির মাথা কাটা। মূর্তিকার দুঃখে ভেঙে পড়েন। ছোটেন মহেশতলা থানায়। কিন্তু থানার পুলিশ অভিযোগ না নিয়ে তাঁকেই চোটপাট শুরু করে।
তারপর পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ওই জায়গাটা ত্রিপল দিয়ে ঘিরে দেয়, যাতে কেউ ওই ভাঙ্গা মূর্তিগুলি দেখতে না পায়।
এলাকায় তেমন কোনো ক্ষোভ বিক্ষোভ নেই। মানুষ যেন অভ্যস্ত হয়ে যাচ্ছে। এই এলাকাতেই এবার দুর্গাপূজার ঠিক আগে ৩০ সেপ্টেম্বর দীপাঞ্জন ক্লাবের দুর্গাপ্রতিমা ভাঙ্গা হয়েছে। তারপর, প্রাপ্ত সংবাদসূত্র অনুসারে, এবার লক্ষীপূজার সময়ও ৩টি লক্ষীপ্রতিমা ভাঙ্গা হয়েছে। এবার যেখানে এতগুলি কালীঠাকুর ভাঙ্গা হল সেই স্থানের অতি নিকটে হিন্দু জাগরণ মঞ্চের দক্ষিণ বঙ্গ রাজ্য সভাপতি শ্রী সোমেন দাস-এর বাড়ি। ফোনে চেষ্টা করেও তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি।