আবার এক নাবালিকা লাভ জিহাদের শিকার

এক ১৪ বছরের নাবালিকা লাভ জিহাদের শিকার। হিন্দু মায়ের কোল থেকে তার মেয়েকে তুলে নিয়ে গেল জিহাদী দুষ্কৃতি।
ঘটনাটি ঘটে কলকাতা উত্তর 24 পরগনা জেলার বারাসাত থানার অন্তর্গত হৃদয়পুর সি পি টি এ (C.P.T.A) কলোনীতে। পিতা সুভাষ বিশ্বাস পেশায় একটি ছোট খাবারের দোকান চালান। মাতা মীরা বিশ্বাস। তাঁদের একমাত্র মেয়ে কুমারী শম্পা বিশ্বাস, বয়স ১৪ বছর ৭ মাস ১৯ দিন। বিগত ১ বছর আগে সফি আহমেদ (রেহান) বারাসতের এম.পি. জুয়েলার্স এ সিকিউরিটির কাজ করতো। সেই সূত্রে শম্পাদের খাবারে খাবার খেতে খেতে শম্পার সাথে রেহানের পরিচয় হয়। তারপর প্রচুর প্রলোভন দেখতে থাকে। শম্পার মা যখন জানতে পারেন, রেহানকে তার মেয়ের সাথে মেলামেশা করতে বারণ করেন। কিন্তু রেহান কোনো কথা না শুনে শম্পার মাকে রীতিমতো হুমকি দিতে থাকে। গত ২৪-০১-২০১৭ তারিখে সন্ধ্যা বেলায় শম্পা যখন পড়তে যায় তখন রেহান শম্পা কে ভুল বুঝিয়ে তুলে নিয়ে যায়। শম্পার মা বারাসাত থানায় সফি আহমেদ ওরফে রেহান-এর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান। কিন্তু থানা গড়িমসি করে ২৫-০১-১৭ তারিখে কেস দায়ের করে। কেস নং Barasat PS 70/17.
সফি বা রেহানের আসল বাড়ি হুগলি জেলার শ্রীরামপুরের কাছে চাঁপদানিতে। তার ঠিকানা, ফোন নম্বর, ছবি সবকিছু থানায় জমা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু থানা নির্বিকার হয়ে হাত গুটিয়ে বসে আছে। এখনো কোন ব্যবস্থা নেয়নি।
শম্পার বাবা ও মা দুজনেই ভেঙে পড়েছেন। তাঁদের নাবালিকা মেয়ের উপর কি করা হচ্ছে, তা ভেবে বাবা খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে শয্যাশায়ী। শম্পার মা, দাদা, কাকা, কাকিমা ছোটাছুটি করছেন। হিন্দু সংহতি দপ্তরে এসে আকুল আবেদন জানিয়েছেন তাঁদের মেয়েকে উদ্ধার করে দেওয়ার জন্য।