৯৬ হাজার টাকার গোলাপি জালনোট সহ মালদার সীমান্তে গ্রেফতার নদীয়ার বাসিন্দা

দেশের মানচিত্রে জালনোট কারবারিদের স্বর্গরাজ্য হয়ে উঠেছে মালদা। কেন্দ্রের নোটবন্দির ১০০ দিন পার হতে না হতেই নতুন ২ হাজার টাকার পরপর জালনোট উদ্ধার হচ্ছে মালদায়। ঠিক রবিবার (১৯ ফেব্রুয়ারী) গভীর রাতে মালদার বৈষ্ণবনগর থানার খেজুরিয়া ঘাট এলাকায় বিএসএফের ২৪ নম্বর ব্যাটেলিয়ন জওয়ান পাকড়াও করে এক যুবককে। যুবকের তল্লাশি চালিয়ে বিএসএফ উদ্ধার করে ৪৮টি ২ হাজার টাকার জালনোট।
বিএসএফ সূত্রে জানাযায়, ধৃতের নাম সারেফুল শাহ(২৮)নদীয়া জেলার বাসিন্দা। ওপার বাংলা থেকে সীমান্তের কাঁটাতার পার করে মালদায় প্রবেশ করেছিল ধৃত। বৈষ্ণবনগর টাউনশিপ এলাকা থেকে গাড়ি করে মালদা থেকে বেরিয়ে পড়ার প্লানিং ছিল সারিফুলের। তবে তার আগেই বিএসএফের হাতে ধরা পড়ে যায়।
তবে নোটগুলি কথা থেকে নিয়ে কোথায় পাচার করার উদ্দেশ্যে ছিল তা তদন্তের স্বার্থে প্রকাশে আনতে চাইনি সীমা সুরক্ষা বিভাগ। বিএসএফ সোমবার দুপুরে ধৃত সহ জালনোট গুলি বৈষ্ণবনগর থানার হাতে তুলে দিয়েছে।
তবে একের পর এক জালনোট উদ্ধার হওয়ায় এটা নিশ্চিত যে নতুন নোটের জাল বানানোর কাজ জোরকদমে চলছে। সম্প্রীতি দিন কয়েক আগেই দেশের সর্বোচ্চ তদন্তকারী সংস্থা (NIA)মালদা থেকে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়, সাথে উদ্ধারও করেন ২ লক্ষ টাকার জালনোট। তদন্তকারী সংস্থা NIA সূত্রে খবর দেশে জালনোট প্রবেশের মূল দার মালদা। জালনোট কারবারিরা ওপর বাংলা থেকে ভারতে জালনোট প্রবেশের মালদা সীমান্তকেই বেঁচে নিচ্ছে। আর মালদা থেকেই ছড়িয়ে যাচ্ছে সারা দেশে এই জালনোট।