হিজাব পরে স্কুল আসার দাবীতে চড়াও রথবাড়ী হাই স্কুলে

স্কুলে ফার্স্ট টার্মিনাল পরীক্ষা চলছিল। গত 18ই এপ্রিল, হঠাৎই বেশ কিছু ছাত্রী হিজাব পরে পরীক্ষা দিতে আসে। শিক্ষক-শিক্ষিকাগণ ও প্রধান শিক্ষক মহাশয় তাদের নিষেধ করেন ও পরের দিন থেকে স্কুল ড্রেস পরে আসতে বলেন। ফল হয় উল্টো। পরের দিন আরও অধিক সংখ্যায় ছাত্রীরা হিজাব পরে আসে এবং প্রায় 150 জন অভিভাবক স্কুলে চড়াও হয়। প্রধান শিক্ষককে শারীরিক হেনস্থা করা হয়। প্রধান শিক্ষক মহাশয় কোনক্রমে নিকটবর্তী কালিয়াচক থানা ও মোথাবাড়ী থানায় যোগাযোগ করেন। দ্রুত পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
ওই ছাত্রীদের ও তাদের অভিভাবকদের দাবী, হিজাব তাদের ধর্মীয় পোশাকের অঙ্গ। তাই হিজাব পরে আসার অনুমতি দিতে হবে। কিন্তু প্রধান শিক্ষক মহাশয় বলেন যে, স্কুলের পরিচালন সমিতির সিদ্ধান্ত ছাড়া তিনি একা এই অনুমতি দিতে পারবেন না।
সেইমত আগামী 27শে এপ্রিল এবিষয়ে আলোচনার দিন ধার্য হয়। ওই দিন সিদ্ধান্ত গ্রহণ হবে – হিজাব পরে আসার অনুমতি দেওয়া হবে কিনা।
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই বিদ‍্যালয়ের 1100 ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে প্রায় 600 হিন্দু এবং 500 মুসলিম ।
আরও উল্লেখ্য যে – এই বিদ‍্যালয়েই গত 2008 সালে বিভিন্ন ক্লাসরুমের দরজায় গরুর অঙ্গ-প্রত‍্যঙ্গ কেটে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছিল ।

Advertisements