মালদার মোথাবাড়িতে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা

mmmপথ দুর্ঘটনায় ছাত্রীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে গত ৮ ই আগস্ট সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা ছড়ালো মালদা জেলার কালিয়াচক থানার অন্তর্গত মোথাবাড়িতে। গত সোমবার ৭ই আগস্ট স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে মোথাবাড়ি মোড়ে ট্রাক্টরের ধাক্কায় শ্রেয়সী মন্ডল(১৫)-এর মৃত্যু হয়।স্থানীয় বাসিন্দারা ঘটনাস্থলে ট্র্যাক্টর চালক হাসিবুর রহমান ওরফে ববি(২০)-কে বেধড়ক মারধর করে। তার ট্রাক্টরে আগুন ধরিয়ে দেয় উত্তেজিত জনতা। পরে রক্তাক্ত হাসিবুরকে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ইতিমধ্যে একটি ১০ সেকেন্ডের ভিডিও ফেসবুক ও হোয়াটস্যাপ-এর মাধ্যমে দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়ে। ভিডিওটি-তে এক ব্যক্তিকে কে বা কারা কাকে কোদাল বাঁট দিয়ে মারছে তাও স্পষ্ট নয়। আর তারপরেই আশেপাশের গঙ্গাপ্রসাদ, রথবাড়ি ও পঞ্চানন্দপুর থেকে প্রচুর মুসলমান এসে হাসিবুরের দেহ নিয়ে মালদা থানা ঘেরাও করে। পুলিশ ওখান থেকে সরিয়ে দিলে তারা মোথাবাড়ি মোড়ে রাস্তা অবরোধ করে। অবরোধকারীরা দোষীদেরকে তাদের হাতে তুলে দেবার দাবি জানাতে থাকে। পরিস্থিতির গুরুত্ব বুঝে ঘটনাস্থলে মালদার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দীপক সরকার বিশাল পুলিশবাহিনী ও RAF নিয়ে এলাকায় ছুটে আসেন। তিনি অবরোধকারীদের অবরোধ তুলে নিতে বলেন এবং মৃতের পরিবারের একজনকে চাকরি দেবার প্রতিশ্রুতি দিলেও অবরোধকারীরা অবরোধ তোলেনি। তখন পুলিশ বাধ্য হয় লাঠিচার্জ করতে। অবরোধকারীরাও তখন পুলিশ লক্ষ্য করে ইঁট ছুড়তে শুরু করলে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটিয়ে অবরোধকারীদের হটিয়ে দেয়। তারা হাসিবুরের মৃতদেহ ফেলে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ হাসিবুরের মৃতদেহ তার পরিবারের হাতে তুলে দেয়। পুলিশ মোথাবাড়ি ও তার আশপাশের এলাকাতে ১৪৪ ধারা জারি করেছে।পরে পুলিশ আশেপাশের এলাকাতে তল্লাশি চালিয়ে ১৬ জনকে গ্রেপ্তার করে। তাছাড়া কালিয়াচক সীমান্তে পাহারা জোরদার করা হয়েছে বলে মালদা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অর্ণব সরকার জানিয়েছেন।

Advertisements