দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার মালদায়, গ্রেফতার টিউশন শিক্ষক

RAKHI-SAHAR-SOKARTO-PORIBAR._03.08.17-715x400.jpgগত ৩ অগস্ট নিজ বাড়িতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হল দ্বাদশ শ্রেণীর একছাত্রী। এই আত্মঘাতীর ঘটনা সামনে আসতেই দানা বেঁধেছে রহস্য। পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ গ্রেফতার করেছে ছাত্রীর টিউশন শিক্ষককে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদার মানিকচক থানার ধরমুটোলা এলাকায়।
পরিবার সূত্রে জানা যায়, মৃত ওই ছাত্রীর নাম রাখী সাহা(১৮)। সে এলাকারই মথুরাপুর বিএসএস উচ্চ বিদ্যালয়ের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী। মথুরাপুর এলাকায় এক প্রাইভেট শিক্ষকের কাছে টিউশন পড়তেন। রাখিকে ওই শিক্ষক বুধবার বিকেলে পড়তে ডাকেন। টিউশন থেকে বাড়ি ফিরেই নিজ ঘরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে মানিকচক গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা মৃত ঘোষণা করেন। পরিবারের অভিযোগ, বুধবার মেয়েকে একাই পড়তে ডাকে ওই শিক্ষক। অন্যান্য কোনো ছাত্রছাত্রীকে সেই সময় পড়তে ডাকা হয়নি। মেয়েকে প্রেমের জন্য চাপ দিত এই শিক্ষক বলে পরিবার অভিযোগ। ওই শিক্ষকের সাথেই কোনো একটা ঘটনা ঘটেছে যার কারণে মেয়ে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে। তারপরই পরিবারের সদস্যরা ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মানিকচক থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনার তদন্তে নেমে মানিকচক থানার পুলিশ বুধবার রাতেই ওই শিক্ষককে রতুয়া থানা এলাকা থেকে গ্রেফতার করে।
পুলিশ সূত্রে খবর, মৃতার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃত ওই টিউশন শিক্ষকের নাম শেখ ইমরান। ভূতনী এলাকার বাসিন্দা। মানিকচকের মথুরাপুর এলাকায় বাড়ি ভাড়া নিয়ে টিউশন পড়ান। বৃহস্পতিবার ধৃত শিক্ষককে জেলা আদালতে তোলা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, প্রেম ঘটিত কোনো সম্পর্ক হতে পারে এই শিক্ষক ছাত্রীর। তবে তা এখন স্পষ্ট নয়। হেফাজতে নেওয়ার পর ঘটনার পেছনের আরও তথ্য বেরিয়ে আসবে বলে পুলিশি অনুমান।

Advertisements