কালিয়াচকে অস্ত্র কারখানা সন্ধানের ঘটনায়, ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে উদ্ধার আরও অস্ত্র

বেআইনি ভাবে অস্ত্র কারখানা চালানোর অভিযোগে ধৃত বাড়ির মালিক সহ বিহাররের সাতজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে আরও এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করল মালদার কালিয়াচক থানার পুলিশ। ধৃতের বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে আগ্নেয়াস্ত্রও।গত ৩০শে আগস্ট, বুধবার এক সাংবাদিক বৈঠক করে এমনটাই জানালেন জেলা পুলিশ সুপার অর্ণব ঘোষ।

প্রসঙ্গত, স্বাধীনতা দিবসের আগের রাতে কালিয়াচক থানার পুলিশ গোপন সুত্রে খবর পেয়ে যদুপুর অঞ্চলের দেবীপুর গ্রামে হানা দেয়। এই গ্রামের বাসিন্দা লুতফর হকের বাড়িতে ঢুকে পড়ে পুলিশ বাহিনী সন্ধান পায় অস্ত্র কারখানার। সেই রাতে তার বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার হয়েছিল ৪৮ টি ৯ এম এম ও ৭ এম এম পিস্তুল, ১৫৫ টি ম্যাগাজিন সহ অস্ত্র তৈরির সরঞ্জাম। ঘটনায় গ্রেফতার করা হয় গৃহকর্তা লুতফর হক সহ বিহারের মুঙ্গের এর ছয় বাসিন্দাকে। এরপর তাদের আদালতে পেশ করে ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজতে নেয় কালিয়াচক থানার পুলিশ। এরপরই শুরু হয় ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ। ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করার পর মঙ্গলবার রাতে কালিয়াচক থানার পুলিশ মৌজমপুর এলাকায় সাফিকুল সেখের বাড়িতে হানা দেয়। বাড়ি তল্লাশি করে উদ্ধার করা হয় ১০ টি পাইপ গান। ঘটনায় গ্রেফতার করা হয় সাফিকুল সেখকে।            বুধবার এই মর্মে কালিয়াচক থানায় এক সাংবাদিক বৈঠক করে জেলা পুলিশ সুপার অর্ণব ঘোষ জানান, ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে সাফল্য পাই কালিয়াচক থানার পুলিশ। ধৃতদের আবার হেফাজতে নেওয়ার আবেদন জানানো হবে আদালতে বলে জানা যায়।

Advertisements