ইসলামিক সন্ত্রাসের শিকার দেব-দেবীর মূর্তি ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো দেওয়ান গঞ্জে

বাংলাদেশে প্রায়শই মন্দির ও দেব-দেবীর মূর্তি ভাঙার খবর আসে। এখন থেকে পশ্চিমবঙ্গেও নিত্য দিনের ঘটনা হয়ে উঠেছে হিন্দুর মন্দির আক্রমণ ও বিগ্রহ ভাঙার।গত ২৯ মে রাতে এই রকমই চরম বর্বরতার সাক্ষী হয়ে থাকলো কোচবিহার জেলার হলদিবাড়ি থানার অন্তর্গত দেওয়ান গঞ্জ এলাকা।
ঘটনার পরদিন সকাল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ প্রায় মুসলিম অধ্যুষিত দেওয়ান গঞ্জের সার্বজনীন দূর্গা মন্দিরের বিগ্রহ ভেঙে গুঁড়িয়ে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় হিন্দুরা। তৎসংলগ্ন রাধাকৃষ্ণ ও শিব মন্দিরের বিগ্রহও ছিন্নভিন্ন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়ে তারা। খবর পেয়ে হলদিবাড়ি এবং আশেপাশের গ্রাম থেকে হাজার হাজার হিন্দু ছুতে আসে ঘটনাস্থলে। প্রায় পাঁচ হাজার মানুষ একত্রিত হয়ে ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে রাস্তা অবরোধ করে এবং স্থানীয় বাজার বন্ধ করে দেয়। বিশাল পুলিশ বাহিনী এসেও অবরোধ তুলতে পারেনি। পুলিশের কাছে ক্ষোভে রোষান্বিত হিন্দুদের দাবি ছিল দুষ্কৃতিদের ধরে তাদের হাতে ছেড়ে দিতে হবে। হিন্দুদের ক্ষোভের আঁচ বাড়তে থাকলে পুলিশ স্নিকার গড নিয়ে এসে অনুসন্ধান চালিয়েও তদন্তে কোনো কিনারা করতে পারেনি। এরপর পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে দুষ্কৃতিদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিলে ২ ঘন্টা চলা অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। একইসঙ্গে স্থানীয় হিন্দুরা প্রশাসনকে জানিয়েছে দুস্কৃতি গ্রেপ্তার না হলে তারা আরও বড় আন্দোলনের পথে যাবে।
হলদিবাড়ি থানা এ বিষয়ে স্থানীয় হিন্দুদের পক্ষ থেকে একটা কেস দায়ের করা হয়েছে। যদিও ঘটনার দুদিন পরেও পুলিশ দুষ্কৃতিদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি। এলাকার পরিস্থিতি যথেষ্ট উত্তপ্ত আছে।

Advertisements