৭ বছরের শিশুকে দিয়ে মুণ্ডচ্ছেদ করাত ইসলামিক স্টেট

ISIS_web-2আমেরিকা, রাশিয়া-সহ আন্তর্জাতিক সৈন্যদলের হামলায় ক্রমশ জমি হারাচ্ছে আন্তর্জাতিক জঙ্গিসংগঠন ইসলামিক স্টেট। ২০১৪ সাল থেকে ওই জঙ্গিগোষ্ঠীর কব্জায় থাকা এলাকাগুলি থেকে উদ্ধার করা হচ্ছে বন্দিদের। ওই বন্দিদের মুখে আইএস জঙ্গিদের নারকীয় অত্যাচারের কথা শুনলে শিউরে উঠতে হয়। বিশেষ করে ইয়াজিদি জনগোষ্ঠীর উপর জঙ্গিদের নৃশংসতা সাক্ষাত শয়তানকেও লজ্জিত করে দেওয়ার মতো। প্রায় আড়াই বছর আইএস জঙ্গিদের হাতে বন্দি থাকার পর উদ্ধার করা হয় ৭ বছরের একটি ইয়াজিদি শিশুকে।
আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, শিশুটি জানিয়েছে, তাকে মানুষের মাথা কাটা শিখিয়েছে আইএস জঙ্গিরা। প্রায় ৩০ দিনের সামরিক প্রশিক্ষণে ওই শিশুটিকে দিয়ে বেশ কয়েকজন বন্দিকে হত্যা করিয়েছে আইএস জঙ্গিরা। এছাড়াও AK-47 রাইফেলের মত বিভিন্ন মারণাস্ত্র চালানো ও বোমা বানানো শেখানো হয় তাকে। ২০১৪ সালে ইরাকের সিনজার প্রদেশ দখল করে আইএস। তখনই ওই শিশুটিকে মা বাবার থেকে ছিনিয়ে নেয় জঙ্গিরা।
ইরাক ও সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের উত্থানের পর সংখ্যালঘুদের উপর শুরু হয় অমানবিক অত্যাচার। হাজার হাজার ইয়াজিদি ও খ্রিস্টান ধর্মালম্বীদের হত্যা ও ধর্ষণ করা হয়।