ষাটোর্ধ শেখের নাবালিকা গৃহিনী

hyderabad-teen_647_081717111043_081817124847.jpgওমানের এক শেখ ৫ লাখ টাকার বিনিময়ে হায়দরাবাদের এক নাবালিকাকে বিয়ে করে ওমানে নিয়ে চলে যায়। পরে মেয়েটি তার পরিবারকে ফোন করে জানায় যে তাকে যদি ফিরিয়ে না আনা হয়, তাহলে সে হয়তো আর বাঁচবে না। তার পর তার পরিবার পুলিশের কাছে তাদের মেয়েকে ফিরে পাবার জন্যে আবেদন জানায়। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি অন্ধ্রপ্রদেশের হায়দরাবাদের। তবে এই ঘটনাটি নতুন নয়। প্রতি বছরই আরবের বয়স্ক শেখেরা টাকার বিনিময়ে নাবালিকা মুসলিম মেয়েদের বিয়ে করে নিয়ে যায়। পরে তাদের অনেকের আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায় না। তবে এই ক্ষেত্রে পরিবারের লোক পুলিশে অভিযোগ জানাতেই ঘটনাটি সারা দেশে চাঞ্চ্যল্যের সৃষ্টি করেছে। পরিবারের লোক পুলিশের কাছে একটি ছবিও জমা দিয়েছে। সেখানে এক বয়স্ক ব্যক্তির সঙ্গে নাবালিকা মেয়েটিকে বিবাহিত অবস্থায় যাচ্ছে। মেয়েটির পরিবারের দাবি, তাদের মেয়ের বয়স ১৬ বছর। মেয়েটির পিসি ৫ লাখ টাকার বিনিময়ে ওমানের মাসকট শহরের এক শেখের সঙ্গে তিন মাস আগে বিয়ে দিয়ে দেয়। এরপর প্রায় মাসকট থেকে ফোন করে মেয়েটি কান্নাকাটি করতো। তাদের আরও দাবি, এক স্থানীয় কাজী হোটেলে তাদের বিয়ে দেয়। এরপর শেখ মাসকট ফিরে যায়। পরে সে ভিসা পাঠিয়ে দেয়। নাবালিকার মায়ের দাবি, ”আমি নিজে ওই শেখের সঙ্গে কথা বলেছিলাম। তার দাবি, তিনি ৫ লক্ষ দিয়েছেন আমার মেয়েকে বিয়ে করার জন্যে। সেই টাকা ফেরত পেলেই তবে তিনি আমার মেয়েকে ফেরত পাঠাবেন।” এমন পরিস্থিতিতে মেয়েটির পরিবার বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের দ্বারস্থ হয়েছেন মেয়েকে ফিরে পাবার জন্যে।

Advertisements