বন্ধ একাধিক কসাইখানা, মিলছে না লখনউয়ের তুলতুলে ‘টুন্ডে কাবাবি’

কার্যত কাবাবহীন লখনউ৷ গোমাংসের কসাইখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় মাংস কিনতে পারছেন না লখনউয়ের বিখ্যাত কাবাবের দোকানের মালিকরা৷ উত্তরপ্রদেশ সরকারের কসাইখানা বন্ধের নির্দেশের পর টানা চারদিন ধরে বাজারে মাংস পাওয়া না যাওয়ায় বিভিন্ন হোটেলে রান্না হচ্ছে না ‘টুন্ডে কাবাবি’তে৷
লখনউয়ের আকবরি গেটের কাছে বিখ্যাত এক কাবাব দোকানের মালিকের বক্তব্য, “গরুর মাংস পাওয়া না গেলে কী করে চলবে? আমরা যদি মাংসই কিনতে না পারি, তাহলে দোকান চালাব কী করে?” আমিনাবাদের কাছে বেশ কিছু মুরগি ও খাসির মাংসের দোকান অবশ্য খোলাই রয়েছে৷ কিন্তু উত্তরপ্রদেশের নবনির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের নির্দেশের পর বন্ধ হয়ে গিয়েছে গরুর মাংসের কসাইখানা ও অবৈধভাবে তৈরি মাংস বিক্রির দোকান৷
মহম্মদ উসমান নামে এক কসাইখানার মালিকের কথায়, “শুনেছি, কানপুরে মাছ আর মুরগিও বিক্রি হচ্ছে না৷ জানি না, এটা গুজব কি না৷ তবে, আকবরি গেট এলাকার সব গোমাংস বিক্রির দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ যার জন্য লখনউ স্পেশাল টুন্ডে কাবাবি আর তৈরি হচ্ছে না হোটেলে৷” গোটা শহরে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে৷